Jago News logo
Web-Banner-26-mar
ঢাকা, রোববার, ২৬ মার্চ ২০১৭ | ১২ চৈত্র ১৪২৩ বঙ্গাব্দ

গ্রন্থ মেলায় ক্ষুদে বইপ্রেমীদের ঢল


আবু সালেহ সায়াদাত ও মুনির হোসাইন

প্রকাশিত: ১২:০৫ পিএম, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৭, শুক্রবার | আপডেট: ১২:০৮ পিএম, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৭, শুক্রবার
গ্রন্থ মেলায় ক্ষুদে বইপ্রেমীদের ঢল
BiskClub

লেখক, প্রকাশক ও সর্বস্তরের ক্রেতা, দর্শনার্থীদের মিলন মেলার অপর নাম অমর একুশের গ্রন্থমেলা। প্রাণের এই মেলার অপেক্ষায় থাকেন লেখক, পাঠক, প্রকাশক ও বইপ্রেমীরা। সাপ্তাহিক ছুটির পাশাপাশি শিশু প্রহর নির্ধারিত থাকায় শুক্রবার সকাল থেকেই ক্ষুদে বইপ্রেমীদের ঢল নেমেছে গ্রন্থ মেলায়।

অভিভাবকসহ শিশুদের স্বাচ্ছন্দ্যে বই কেনার সুবিধার্থে অমর একুশে গ্রন্থমেলায় শুক্রবারকে শিশুপ্রহর হিসেবে ঘোষণা করেছে বাংলা একাডেমি।

এদিন বেলা এগারোটায় মেলার দার উন্মোচিত হওয়ার কথা থাকলেও তার আগেই অভিভাবকসহ শিশু-কিশোরদের দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করতে দেখা গেছে প্রবেশ গেটে।

Mela
এসব শিশু-কিশোরের বেশিরভাগ বাবা-মায়ের হাত ধরে, আবার অনেকেই বন্ধু অথবা শিক্ষকের সঙ্গে এসেছে প্রাণের মেলায়। ফলে ক্ষুদে বইপ্রেমীদের আনাগোনায় মুখরিত ছিলো শুক্রবারের মেলা প্রাঙ্গন। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ভিড়ও বাড়ছে, ‘শিশু প্রহর’-এ বাংলা একাডেমি চত্বর ও সোহরাওয়ার্দীর বই মেলায়। মেলার প্রাঙ্গনজুড়ে ছোটাছুটি, মা-বাবার হাত ধরে স্টলে স্টলে বই দেখা, বই কিনে তা হাতে মেলা প্রাঙ্গনে ঘুরছে এসব ক্ষুদে বইপ্রেমী।

রাজধানীর ধানমন্ডি থেকে শিশু সন্তান নিশানকে সঙ্গে নিয়ে মেলায় এসেছেন মা তানিয়া হামিদ। তিনি বলেন, শুক্রবার সাপ্তাহিক ছুটির দিনের পাশাপাশি বই মেলায় শিশু প্রহর হওয়ায় সন্তানকে বই মেলার মর্মার্থ বুঝাতে এনেছি। শিশুদের কথা মাথায় রেখে এমন প্রহরের আয়োজন করায় বাংলা একাডেমি কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ।

এ সময় ক্ষুদে বইপ্রেমী নিশান জানায়, আম্মুর সঙ্গে ঘুরে ঘুরে অনেক বই কিনবো। ছড়া আর ঠাকুমার ঝুলি বেশি পছন্দ আমার। তাই এসব বই কিনবো আজ।

এএস/এমএইচ/এমএমজেড/পিআর

আপনার মন্তব্য লিখুন...