Jago News logo
ঢাকা, শনিবার, ২১ জানুয়ারি ২০১৭ | ৮ মাঘ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ

ভারতের অডিও ইন্ডাস্ট্রির সঙ্গে কাজ করছি : বুশরা


জাগো জবস ডেস্ক

প্রকাশিত: ০১:৪৭ পিএম, ০৭ জানুয়ারি ২০১৭, শনিবার | আপডেট: ০১:২৫ পিএম, ০৮ জানুয়ারি ২০১৭, রোববার
ভারতের অডিও ইন্ডাস্ট্রির সঙ্গে কাজ করছি : বুশরা

দেশের সংগীতাঙ্গনের উঠতি গায়িকা বুশরা জাবিন। তবে তিনি হাঁটছেন একটু ভিন্ন পথে। তিনি সবার মত না হয়ে হয়েছেন রকস্টার। রকস্টার জেমসকে অনুসরণ করেই দেশের প্রথম নারী রকস্টার হিসেবে পা রাখতে চলেছেন ভারতের শোবিজে।

সম্প্রতি তার ক্যারিয়ার নিয়ে গল্প করেছেন জাগো জবসের সঙ্গে। সাক্ষাৎকার নিয়েছেন মাহবুবর রহমান সুমন

bushra

জাগো জবস : আপনার সংগীতজীবনের হাতেখড়ির গল্প শুনতে চাই-
বুশরা জাবিন : আমার বয়স যখন চার বছর; তখন থেকেই আমার বাসায় গানের শিক্ষক আসতেন। সেই সময়ই আমার সংগীতের হাতেখড়ি। এভাবে ক্লাস ফাইভ পর্যন্ত সংগীতচর্চা থাকলেও দুই বছর আমি চর্চার বাইরে ছিলাম। তারপর আমি আবার সংগীতচর্চা শুরু করি। তখন থেকেই গানের ব্যাপারে সিরিয়াস হই। আর কলেজে ওঠার পর আমার এক বন্ধুর সঙ্গে পরিচয় হয়। তারপর আমরা দু’জন একসঙ্গে কাজ শুরু করি। এভাবে কাজ করার পর ২০১৬ সালে আমি আমার প্রথম একক অ্যালবাম মুক্তি দেই।

জাগো জবস : আপনার রকস্টার হওয়ার পিছনের গল্প কী?
বুশরা জাবিন : আমার প্রথম অ্যালবামে প্রায় সব রকম গান দিয়ে সাজিয়ে ছিলাম। কিন্তু অ্যালবাম মুক্তির পর দেখলাম অডিয়েন্স শুধু আমার রক গানগুলো শুনছে। তাই আমার অডিয়েন্সের কথা চিন্তা করে শুধু রক গান করা শুরু করি। এছাড়া আমি দেখলাম, আমার ভোকালের সঙ্গে রক গানটা অন্য গানের চেয়ে খুব ভালো যায়। এ কারণেই রক গান করা।

bushra

জাগো জবস : ভারতের শোবিজে পা রাখার ব্যাপারে যদি কিছু বলতেন-
বুশরা জাবিন : আমাদের দেশ থেকে জেমস ভাই প্রথমে বলিউডে রক গান গেয়ে সফল হয়েছেন। আমি আপাতত বলিউড না, তাদের অডিও ইন্ডাস্ট্রি এবং ব্যান্ড দলের সঙ্গে কাজ করছি। এখনো পর্যন্ত কলকাতায় কয়েকটি স্টেজ শো করেছি। আর অডিও ইন্ডাস্ট্রিতে মিউজিক ভিডিওর শুট বাকি থাকায় সেগুলো এখনো মুক্তি পায়নি। সে কারণে এই মাসেই ভারত যাচ্ছি। খুব তাড়াতাড়ি ভারতের শোবিজে আমার গান মুক্তি পেতে যাচ্ছে। এছাড়া মুম্বাইতে কাজ করার ব্যাপারে কথা চলছে।

জাগো জবস : ভারতের শোবিজে পথচলার পিছনের গল্প কী?
বুশরা জাবিন : ভারতের প্রাচীর ব্যান্ডের লীড গিটারিস্ট আমার বন্ধু। ও আমাকে একদিন বলল যে, ও আমার সঙ্গে কাজ করতে চায়। আমি তখন একটু ব্যস্ত থাকায় ওকে বাংলাদেশে আমন্ত্রণ জানাই। তখন ও ফ্রি থাকায় বাংলাদেশে আসে। তখন আমরা একসঙ্গে একটা কাজ করি। যেটা আমি আমার ইউটিউব চ্যানেলে আপলোড করি। তারপর ওই গান দেখে ভারত থেকে আমার কাজের প্রস্তাব আসতে থাকে। এভাবেই পথচলা শুরু।

bushra

জাগো জবস : কাজের ক্ষেত্রে আপনার আইডল কে?
বুশরা জাবিন : জেমস ভাই। উনি আমাকে রক গানের ব্যাপারে খুব উৎসাহ দেন। তাছাড়া উনি আমাকে মেয়ের মত ট্রিট করেন। তাই দেশ-বিদেশ মিলিয়ে জেমস ভাই আমার একমাত্র আইডল।

জাগো জবস : ক্যারিয়ার নিয়ে আপনার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা কী?
বুশরা জাবিন : যখন গান শুরু করি; তখন থেকে ইচ্ছা ছিল আন্তর্জাতিক পর্যায়ে গান করার। যা এখন শুরু করেছি। ভবিষ্যতে লোকাল গানের পাশাপাশি আরো বেশি আন্তর্জাতিক পর্যায়ে গান করতে চাই।

bushra

জাগো জবস : পাঠকদের জন্য যদি কিছু বলার থাকে-
বুশরা জাবিন : আমার মিউজিকে কাজ করার পেছনে একটাই কারণ আমার ভক্তদের সাপোর্ট। কেননা বাংলাদেশে মেয়ে হয়ে রক গান করা আর এটাতে ক্যারিয়ার তৈরি করা অনেক কঠিন ব্যাপার। আমি এই রিস্কটা নিয়েছি শুধু আমার ভক্তদের ভালোবাসার জন্য। ভক্তদের জন্য আজ আমি এ পর্যন্ত আসতে পেরেছি। ভবিষ্যতে আরো অনেক কাজ করতে চাই আর ভক্তদের এভাবে পাশে পেতে চাই।

জাগো জবস : আপনার জন্য অনেক অনেক শুভকামনা।
বুশরা জাবিন : জাগো নিউজের প্রতি আমার অনেক কৃতজ্ঞতা ও ভালোবাসা রইল।

এসইউ/জেআইএম

আপনার মন্তব্য লিখুন...

 
Comfy-For-Desk