Jago News logo
ঢাকা, শনিবার, ২১ জানুয়ারি ২০১৭ | ৮ মাঘ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ

কল্যাণকে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ


নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ০৩:৪২ পিএম, ১১ জানুয়ারি ২০১৭, বুধবার | আপডেট: ০৬:৫০ পিএম, ১১ জানুয়ারি ২০১৭, বুধবার
কল্যাণকে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ

প্রথম আলোর প্রধান আলোকচিত্রী জিয়া ইসলামকে গাড়িচাপা দেয়ার মামলায় অভিনেতা কল্যাণ কোরাইয়াকে তিন কার্যদিবসের মধ্যে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। বুধবার ঢাকা মহানগর হাকিম মাজহারুল হক শুনানি শেষে তার রিমান্ড ও জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে এ আদেশ দেন।

এর আগে কল্যাণ কোরাইয়াকে ঢাকা মহানগর হাকিমের আদালতে হাজির করে মামলার সুষ্ঠু তদন্তের জন্য তিনদিনের রিমান্ড আবেদন করে পুলিশ। শুনানি শেষে আদালত এ আদেশ দেন।

শুনানির সময় উপস্থিত ছিলেন বাদী পক্ষের আইনজীবী প্রশান্ত কুমার কর্মকার, আবুল কালাম আজাদ, সৈয়দ আহম্মেদ গাজী, আশরাফ উল আলম, চৈতন চন্দ্র হাওলাদার, মঞ্জুর আলম, তুহিন হাওলাদার ও শুভ্র সিনহা রায়। তারা কল্যাণের রিমান্ডের জোর আবেদন করেন।

বাদী পক্ষের আইনজীবী প্রশান্ত কুমার কর্মকার বলেন, দুর্ঘটনার কথা আসামি হাসপাতালে গিয়ে নিজেই স্বীকার করেছে। বিষয়টি ইচ্ছাকৃত কিনা তা তদন্তের দাবিদার। রিমান্ডে নিয়ে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে ঘটনার মূল রহস্য জানা যাবে।

অপরদিকে কল্যাণের আইনজীবী মোহাম্মদ ফারুক রিমান্ড বাতিল চেয়ে জামিন আবেদন করেন। তিনি শুনানিতে বলেন, মামলাটি জামিনযোগ্য ধারার, তাই তাকে জামিন দেয়া হোক।

মঙ্গলবার দুপুরে কল্যাণ কোরাইয়াকে কলাবাগান থানায় ডেকে নিয়ে যায় পুলিশ। এরপর এ মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখানো হয়।

মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, সোমবার রাত সাড়ে ১১টার সময় বসুন্ধরা শপিংমলের সামনের সড়ক দিয়ে মোটরসাইকেলে যাওয়ার সময় একটি বেপরোয়া গতির গাড়ি জিয়ার মোটরসাইকেলকে পেছন থেকে ধাক্কা দেয়। এ সময় সেখানে থাকা আরও কয়েকজন সাংবাদিক গাড়িটি থামানোর চেষ্টা করেন। কিন্তু ধাক্কা দেয়ার পর গাড়িচালক সেখানে না দাঁড়িয়ে গাড়ির সামনে-পেছনের লাইট বন্ধ করে দ্রুতগতিতে পালিয়ে যান। যে কারণে গাড়ির নম্বরপ্লেট তাৎক্ষণিকভাবে কেউ দেখতে পারেনি। দুজন সাংবাদিক আহত জিয়া ইসলামকে একটি অটোরিকশায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান।

ওইদিন রাত দেড়টার দিকে কল্যাণ কোরাইয়া হাসপাতালে জিয়া ইসলামকে দেখতে যান। সেখানে তিনি উপস্থিত কয়েকজন সাংবাদিককে বলেন, তার গাড়ির মাধ্যমে দুর্ঘটনাটি ঘটেছে।

এ ঘটনায় প্রথম আলোর নিরাপত্তা ব্যবস্থাপক মেজর (অব.) সাজ্জাদুল কবীর মঙ্গলবার রাতে কলাবাগান থানায় বাদী হয়ে একটি মামলা করেন।

উল্লেখ্য, উন্নত চিকিৎসার জন্য জিয়া ইসলামকে মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর এ্যাপোলো হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত তার অবস্থার খুব একটা উন্নতি হয়নি।

জেএ/এসএইচএস/জেআইএম

আপনার মন্তব্য লিখুন...

Comfy-For-Desk