Jago News logo
ঢাকা, সোমবার, ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ | ৮ ফাল্গুন ১৪২৩ বঙ্গাব্দ

হজ ব্যবসায় হাজার এজেন্সি


বিশেষ সংবাদদাতা

প্রকাশিত: ১১:১২ পিএম, ১১ জানুয়ারি ২০১৭, বুধবার | আপডেট: ০৩:০৬ পিএম, ১২ জানুয়ারি ২০১৭, বৃহস্পতিবার
হজ ব্যবসায় হাজার এজেন্সি

বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় চলতি বছর প্রায় এক হাজার হজ এজেন্সি হজযাত্রী পরিবহন করবে। সর্বশেষ গত বছর (২০১৬) মাত্র ৪৮৩টি হজ এজেন্সি যাত্রী পরিবহন করলেও এবার এজেন্সির সংখ্যা দ্বিগুণ হয়েছে। সম্প্রতি ধর্ম মন্ত্রণালয়ের উপসচিব (হজ) মো. শরাফত জামান স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে মোট ৯৬৪টি অনুমোদিত হজ এজেন্সির তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে।

ধর্ম মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, চলতি বছর হজ গমনেচ্ছুদের প্রাক নিবন্ধন কার্যক্রম আগামী রোববার (১৫ জানুয়ারি) থেকে শুরু হচ্ছে। ইতোমধ্যেই ২৫টি ব্যাংককে প্রাক নিবন্ধনের অর্থ সংগ্রহের অনুমতি প্রদান করা হয়েছে। চলতি বছর এক লাখ ২৭ হাজার হজযাত্রী হজে যাওয়ার কথা শোনা যাচ্ছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের একাধিক দায়িত্বশীল কর্মকর্তা জানান, প্রতিবেশী দেশ ভারত, পাকিস্তান, মালয়েশিয়াসহ বিশ্বের কোনো দেশে এতো বিপুল সংখ্যক হজ এজেন্সি হজযাত্রী পরিবহন করে না। অধিকাংশ দেশ সুষ্ঠু হজ ব্যবস্থাপনার শর্তে সরকারি ব্যবস্থাপনায় হজযাত্রী পরিবহন করে থাকে।

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালে বাংলাদেশ থেকে মোট এক লাখ এক হাজার ৭৫৮ জন হজযাত্রী সৌদি আরব যায়। তন্মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় মাত্র ৫ হাজার হাজি হজে যান।

কিন্তু বাংলাদেশেই একমাত্র দেশ যেখানে হজযাত্রী পরিবহনের নামে প্রায় হাজার এজেন্সি ব্যবসা করছে। এতো বিপুল এজেন্সিকে হজযাত্রী পরিবহনের অনুমতি দেয়ায় হজগমনেচ্ছু হাজার হাজার যাত্রী ভোগান্তিতে পড়তে পারেন বলে তারা আশঙ্কা প্রকাশ করেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সৌদি সরকারের সর্বশেষ নির্দেশনা অনুযায়ী যেসব হজ এজেন্সি কমপক্ষে ১৫০ জন যাত্রী পরিবহন করতে পারবে তাদেরকেই হাজি পাঠানোর অনুমতি দেয়া হবে। এ বছরও একই নির্দেশনা বহাল থাকার কথা শোনা যাচ্ছে।

তবে হজ এজেন্সিস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (হাব) নেতারা ধর্ম মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে ৫০ জন হাজি পরিবহনে সক্ষম এজেন্সিকে অনুমতি প্রদানে সৌদি সরকারের সঙ্গে আলোচনা করতে অনুরোধ জানিয়েছেন।

ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র তথ্য কর্মকর্তা মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেইনের কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, আগামী ১ ফেব্রুয়ারি ধর্মমন্ত্রীর নেতৃত্বে  ধর্ম সচিবসহ পাঁচ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল ২০১৭ সালের হজ সংক্রান্ত চুক্তিনামা করতে সৌদি আরব যাবেন।

তবে প্রায় এক হাজার হজ এজেন্সিকে অনুমতি দেয়ার ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি কোনো প্রকার মন্তব্য করতে অস্বীকৃতি জানান। ধর্ম সচিবের সঙ্গে মন্ত্রণালয়ে দেখা করতে গেলে তার ব্যক্তিগত সহকারী জানান, তিনি ঢাকার বাইরে আছেন।

হজ এজেন্সিগুলোর তালিকা দেখতে এখানে ক্লিক করুন

এমইউ/বিএ

আপনার মন্তব্য লিখুন...