পোল্ট্রি শিল্পের উন্নয়নে প্রশিক্ষিত জনশক্তি দরকার

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়
প্রকাশিত: ১২:৩৯ পিএম, ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৮

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. রইছউল আলম মন্ডল বলেন, ‘সুস্থ-সবল জাতি গঠনে প্রাণিজ আমিষের ভূমিকা অপরিসীম। যার একটি বড় অংশ আসে পোল্ট্রি খাত থেকে। তাই পোল্ট্রি শিল্পের উন্নয়নে প্রশিক্ষিত জনশক্তি দরকার। এ খাতকে এগিয়ে নিতে দক্ষ মানবসম্পদ তৈরিতে এ ধরনের প্রশিক্ষণের প্রয়োজন রয়েছে।’

১০ সেপ্টেম্বর বিকেলে শেকৃবির শেখ কামাল অনুষদ ভবনের সেমিনার গ্যালারিতে প্রশিক্ষণ কর্মশালা উদ্বোধন অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শেকৃবি) এনিম্যাল সায়েন্স অ্যান্ড ভেটেরিনারি মেডিসিন অনুষদের মেডিসিন অ্যান্ড পাবলিক হেলথ বিভাগ এ কর্মশালার আয়োজন করে।

যুক্তরাষ্ট্রের বিখ্যাত এনিমেল হেলথ কোম্পানি ‘ফাইব্রো এনিম্যাল হেলথ কর্পোরেশন’র সহযোগিতায় বাংলাদেশি প্রাণিচিকিৎসকদের প্রোল্ট্রি রোগ নির্ণয় এবং সঠিক চিকিৎসার মাধ্যমে জনস্বাস্থ্য নিশ্চিত করতে এ কর্মশালা শুরু হয়। বিদেশি বিশেষজ্ঞদের উপস্থিতিতে ৩ দিনব্যাপী এ কর্মশালার আয়োজন করা হয়।

অনুষদীয় ডিন অধ্যাপক ড. জাহাঙ্গীর আলমের সভাপতিত্বে ড. কেবিএম সাইফুল ইসলামের সঞ্চালনায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. রইছউল আলম মন্ডল। বিশেষ অতিথি ছিলেন শেকৃবির উপাচার্য অধ্যাপক ড. কামাল উদ্দিন আহাম্মদ ও প্রাণিসম্পদ অধিদফতরের মহাপরিচালক ডা. হীরেশ রঞ্জন ভৌমিক।

মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন পোল্ট্রি রোগ বিশেষজ্ঞ ফাইব্রো ব্রাজিলের টেকনোলজি ডেভেলপমেন্ট বিষয়ক পরিচালক ড. সিজার লোপেজ। উপস্থিত ছিলেন ফাইব্রো দক্ষিণ আফ্রিকার মার্কেটিং ও টেকনিকাল বিষয়ক পরিচালক ড. চার্লস কস্টেলো, ফাইব্রো যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া অঞ্চলের কমার্শিয়াল ম্যানেজার ড. এরকিন এরকমেন, ফাইব্রো মালয়েশিয়ার মার্কেটিং ও টেকনিকাল বিষয়ক ম্যানেজার ড. লিয়ান্দ্রো ফেরেইরা এবং ফাইব্রো ইউএসএর বাংলাদেশি লোকাল পার্টনার প্রোভেট রিসোর্সেস লিমিটেডের পরিচালক ড. শামিম আহমেদ।

কর্মশালায় যুক্তরাষ্ট্র, ব্রাজিল, মালয়েশিয়া ও দক্ষিণ আফ্রিকার বিশেষজ্ঞদের উপস্থিতিতে ৩ দিনে প্রাণিসম্পদ অধিদফতর, বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত প্রাণিচিকিৎসক এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকসহ ৬০ জন প্রাণিচিকিৎসক অংশগ্রহণ করেছেন।

মো. রাকিব খান/এসইউ/জেআইএম

আপনার মতামত লিখুন :