দেশজুড়ে

বেশি বাড়াবাড়ি করলে রেপ কেসে ফাঁসিয়ে দেব

যশোরের শার্শায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে এক দম্পতিকে পিটিয়ে গুরুতর জখম করেছে প্রতিবেশীরা। শনিবার দুপুরে উপজেলার ডিহি ইউনিয়নের নারকেলবাড়িয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। আহত দম্পতিকে শার্শা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেছে স্বজনেরা।

এদিকে, আব্দুল হাই ও মুসলিমা খাতুন চরম আতঙ্কের মধ্যে রয়েছেন। তারা বলেন, ‘সইরুননেছা পেশায় একজন সুদের ব্যবসায়ী। তার ছেলে আবু হানিফা মাদক ব্যবসায়ী। তারা উল্টো মামলা করার ভয়-ভীতি দেখাচ্ছে এবং বেশি বাড়াবাড়ি করলে আব্দুল হাইকে রেপ কেস দিয়ে ফাঁসিয়ে দেয়ার হুমকি দিচ্ছে।’

হাসপাতাল ও আহতদের স্বজনেরা জানান, গত বৃহস্পতিবার সকালে নারকেলবাড়িয়া গ্রামের আব্দুল হাই ও তার স্ত্রী মুসলিমা খাতুন দম্পতি এক আত্মীয়ের বাড়িতে বেড়াতে যান। ফিরে এসে তাদের বাড়ির ছাগলকে মৃত দেখতে পান। এ ঘটনায় প্রতিবেশী সইরুননেছার কাছে বিষয়ে জানতে চাইলে তারা কিছুই জানে না বলে জানান।

এ ঘটনার জের ধরে শনিবার দুপুরে প্রতিবেশী সইরুননেছা ও তার ছেলে আবু হানিফ, ভাই নজরুল ইসলাম এবং বোন মরিয়ম মিলে আব্দুল হাই ও তার স্ত্রীকে পিটিয়ে গুরুতর জখম করে। পরে আহত দম্পতিকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের ডাক্তার মশিউল আলম জানান, আহত আব্দুল হাইয়ের মাথায় ৪টা সেলাই দেয়া হয়েছে এবং তার স্ত্রীকে মুখে ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে মারপিটিরে কারণে জখম হওয়ায় তাদের দু’জনকেই চিকিৎসা দিয়ে হাসপাতালে ভর্তি রাখা হয়েছে।

এ ব্যাপারে নারকেলবাড়িয়া গ্রামের ইউপি সদস্য ফারুক হোসেন বলেন, ‘বিষয়টি আমি কিছুটা শুনেছি। হাসপাতালে গিয়ে খোঁজ-খবর নিয়ে মিটিয়ে ফেলার চেষ্টা করব।’

শার্শার গোড়পাড়া পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই খায়রুল আলম জানান, এখনও কোনো অভিযোগ পাওয়া যায়নি। অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

মো. জামাল হোসেন, বেনাপোল, যশোর।

এমআরএম/এমকেএইচ