খেলাধুলা

ক্রিকইনফোর ‘বাদ পড়াদের দলে’ও নেই ইমরুল-তাসকিন

সব জল্পনা-কল্পনা শেষে জানা গিয়েছে ১০ দেশের কোন ১৫০ জন ক্রিকেটার বিশ্বকাপে প্রতিনিধিত্ব করবেন নিজ নিজ দেশের। প্রায় সব দেশের বিশ্বকাপ দলেই রয়েছে কমবেশি চমক, তেমনি অনেক প্রত্যাশিত ক্রিকেটারও বাদ পড়েছেন স্কোয়াড থেকে।

তাদের নিয়েই বিশ্বকাপে ‘বাদ পড়াদের একাদশ’ বেছে নিয়েছে জনপ্রিয় ক্রিকেট বিষয়ক ওয়েবসাইট ক্রিকইনফো। এই একাদশেও নেই বাংলাদেশের কোনো ক্রিকেটার। ক্রিকইনফোর নিয়মিত পাঠকদের ভোটের ভিত্তিতেই গঠন করা হয়েছে এ একাদশ।

যেখানে জায়গা পাননি বাংলাদেশের বিশ্বকাপ স্কোয়াড থেকে বাদ পড়া দুই আলোচিত ক্রিকেটার তাসকিন আহমেদ এবং ইমরুল কায়েস। সাম্প্রতিক সময়ে ইমরুলের পারফরম্যান্স এবং বিপিএলে তাসকিনের ছন্দে থাকা বোলিংয়ের পর আশা করা হয়েছিল বিশ্বকাপের টিকিট পাবেন দুজনই।

কিন্তু বিশ্বকাপের জন্য ঘোষিত স্কোয়াডে জায়গা পাননি ইমরুল বা তাসকিন। এমনকি স্কোয়াড থেকে ‘বাদ পড়াদের একাদশ’টিতেও নেই দুজনের কেউই। এই একাদশে সবচেয়ে বেশি ৩৬২০০ ভোট পেয়েছেন ভারতীয় ক্রিকেট দলের উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান রিশাভ পান্ত।

এছাড়া দক্ষিণ আফ্রিকান অলরাউন্ডার ক্রিস মরিসের পক্ষে পড়েছে সর্বোচ্চ ৬২ শতাংশ ভোট। এমনকি এখনো পর্যন্ত আন্তর্জাতিক ক্রিকেট না খেলা ক্যারিবিয়ান বংশোদ্ভূত ইংলিশ পেসার জোফ্রা আর্চারের নামের পাশেও দেখা মিলেছে ৫৭ শতাংশ ভোট।

বাদ পড়াদের এই একাদশে পান্ত ছাড়াও উইকেটরক্ষক রয়েছেন আরও তিনজন- শ্রীলঙ্কান দুই বাঁহাতি উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান নিরোশান ডিকভেলা ও দীনেশ চান্দিমাল এবং অস্ট্রেলিয়ার ডানহাতি উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান পিটার হ্যান্ডসকম্ব।

এছাড়া সুনিল নারিন, কাইরন পোলার্ড এবং মোহাম্মদ আমিরদের মতো তারকা ক্রিকেটারদেরও দেখা যাচ্ছে ক্রিকইনফোর এ একাদশে। সবমিলিয়ে অস্ট্রেলিয়া, ভারত, শ্রীলঙ্কা, পাকিস্তান ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ থেকে ২ জন এবং ইংল্যান্ড ও দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে ১ জন করে রয়েছেন ১২ জনের এ দলে।

ক্রিকইনফোর বাদ পড়াদের একাদশ: নিরোশান ডিকভেলা (শ্রীলঙ্কা), রিশাভ পান্ত (ভারত), আম্বাতি রাইডু (ভারত), পিটার হ্যান্ডসকম্ব (অস্ট্রেলিয়া), দীনেশ চান্দিমাল (শ্রীলঙ্কা), কাইরন পোলার্ড (ওয়েস্ট ইন্ডিজ), ক্রিস মরিস (দক্ষিণ আফ্রিকা), জোফ্রা আর্চার (ইংল্যান্ড), মোহাম্মদ আমির (পাকিস্তান), জশ হ্যাজেলউড (অস্ট্রেলিয়া) এবং সুনিল নারিন (ওয়েস্ট ইন্ডিজ)।

দ্বাদশ ব্যক্তি: আসিফ আলি (পাকিস্তান)।

এসএএস/পিআর