দেশজুড়ে

কৃষককে গুলি করে হত্যা, ইউপি চেয়ারম্যানসহ ২৭ জনের নামে মামলা

শেরপুরের নালিতাবাড়ী উপজেলার যোগানিয়া ইউনিয়নের কুত্তামারা গ্রামে কৃষক ইদ্রিস আলীকে (২৭) গুলি করে হত্যার ঘটনায় মামলা হয়েছে। বৃহষ্পতিবার রাতে নিহতের বাবা ফজলুর রহমান বাদী হয়ে নালিতাবাড়ী থানায় মামলা দায়ের করেন।

মামলায় যোগানিয়া ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান হবুকে প্রধান আসামি করে ২৭ জনকে আসামি করা হয়েছে। মামলার এজাহারে পূর্ব থেকে সৃষ্ট দ্বন্দ্বে ইদ্রিসকে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ আনা হয়েছে। আসামিদের মধ্যে হাবিবুর চেয়ারম্যানের ছেলে শান্ত মিয়াসহ তার পরিবার ও আত্মীয়-স্বজনরা রয়েছেন।

নালিতাবাড়ী থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল খায়ের মামলা দায়েরের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, অভিযুক্ত ২৭ আসামির মধ্যে ৮ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। প্রধান আসামি ইউপি চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান হবুসহ অন্যদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

এদিকে, ২৬ এপ্রিল শুক্রবার বিকেল ৩টার দিকে শেরপুর জেলা হাসপাতাল মর্গে নিহত ইদ্রিস আলীর ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়েছে। ময়নাতদন্তকালে নিহত ইদ্রিস আলীর শরীর থেকে গুলি পাওয়া গেছে বলে ময়নাতদন্তকারী চিকিৎসকরা জানিয়েছেন।

কৃষক ইদ্রিস হত্যাকাণ্ডে নালিতাবাড়ীর যোগানিয়া ইউনিয়নের কুত্তামারা গ্রামে থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। বৃহষ্পতিবার রাতে প্রায় পাঁচ শতাধিক গ্রামবাসী চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান ও তার ছেলে শান্ত মিয়ার ফাঁসি দাবি করে নালিতাবাড়ী শহরে বিক্ষোভ মিছিল করেছে। তারা দ্রুতবিচার আইনে মামলা করে হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক বিচার দাবি করেছেন।

হাকিম বাবুল/এমএএস/পিআর