জাতীয়

সব স্থানে সমপরিমাণ গ্যাস সরবরাহের সুপারিশ

দেশের সব স্থানে সমপরিমাণ গ্যাস সরবরাহ নিশ্চিত করার সুপারিশ করেছে সংসদীয় কমিটি। এ ছাড়া অপশোর গ্যাস আহরণে আরও বেশি কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণে মন্ত্রণালয়কে ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করে কমিটি।

এ ছাড়া বৈঠকে সারাদেশের বিদ্যুৎ ও জ্বালানি স্থাপনাগুলোর নিরাপত্তা নিশ্চিত করারও সুপারিশ করা হয়।

রোববার জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির তৃতীয় বৈঠকে এসব সুপারিশ করা হয়।

কমিটির সভাপতি মো. শহীদুজ্জামান সরকারের সভাপতিত্বে বৈঠকে কমিটির সদস্য মো. আবু জাহির. মো. আলী আজগার, এসএম জগলুল হায়দার, মো. নূরুল ইসলাম তালুকদার, মো. আছলাম হোসেন সওদাগর, মোছা. খালেদা খানম এবং বেগম নার্গিস রহমান অংশ নেন।

বৈঠকে ২০২৩ সালের মধ্যে ৫,০০০ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস সরবরাহের চ্যালেঞ্জ উত্তরণে গৃহীত পরিকল্পনা বাস্তবায়নের অগগ্রগতি নিয়ে আলোচনা হয়।

বৈঠকে গ্যাসের উপজাত কনডেনসেট নিয়ে আলোচনা হয়। দেশে স্থাপিত কনডেনসেট প্লান্টগুলোতে পর্যাপ্ত কনডেনসেট সরবরাহ করার সক্ষমতা না থাকলেও মন্ত্রণালয় থেকে যাতে নতুন কনডেনসেট প্লান্ট নির্মাণের অনুমতি না দেয়া হয় সে বিষয়ে সুপারিশ করা হয়। এ ছাড়াও কনডেনসেটের মূল্য যাতে আমদানি করা জ্বালানি তেলের মূল্য অপেক্ষা বেশি না হয় এবং কোনোভাবেই কনডেনসেট আমদানির অনুমতি না দেয়া হয় সে বিষয়ে মন্ত্রণালয়কে ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করা হয়।

বৈঠকে কনডেনসেটের ক্ষতিকর দিক নিয়ে অলোচনা করা হয় এবং যারা এ ক্ষতিকর কাজের সঙ্গে জড়িত তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করা হয়। বৈঠকে অন্য দেশের অভিজ্ঞতা নিয়ে কনডেনসেট ব্যবহারের সৃষ্ট সমস্যা থেকে মুক্তি লাভের প্রক্রিয়া উদ্ভাবনের পাশাপাশি একটি নীতিমালা প্রণয়নের সুপারিশ করা হয়।

বৈঠকে দশম জাতীয় সংসদের সংসদীয় কমিটির সুপারিশ বাস্তবায়নে জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগের কার্যক্রম নিয়ে আলোচনা হয়। এ সময় কমিটিকে জানানো হয়, দশম সংসদে মোট ১১০টি সুপারিশ করা হয়। এর মধ্যে ৮৪টি সুপারিশ পরিপূর্ণ বাস্তবায়ন করা হয়েছে অর্থাৎ পরিপূর্ণ সুপারিশ বাস্তবায়নের হার ৯২%। অন্যান্য সুপারিশগুলোও বাস্তায়নাধীন রয়েছে মর্মে কমিটিকে জানানো হয়।

বৈঠকে জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগের সচিব আবু হেনা মো. রহমাতুল মুনিমসহ বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয় ও সংসদ সচিবালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এইচএস/এনডিএস/এমএস