রাজনীতি

ছাত্রদল নেতাদের সঙ্গে তারেকের ভিডিও কনফারেন্স

 

লন্ডন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময় করেছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান।

 

শুক্রবার রাতে গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয় থেকে ছাত্রদল নেতারা এ ভিডিও কনফারেন্সে অংশ নেন।

 

কেন্দ্রীয় কমিটি পুনর্গঠনের ব্যাপারে ছাত্রদল নেতারা তাদের মতামত তারেক রহমানের কাছে পেশ করেন। লিখিত বক্তব্যে ছাত্রদলের সহ-সভাপতি এজমল হোসেন পাইলট তারেক রহমানকে বলেন, ‘পরোক্ষভাবে জানতে পেরেছি, দলীয় হাইকমান্ড নিয়মিত ছাত্রদের দিয়ে ছাত্রদলের শীর্ষ নেতৃত্ব নির্বাচন করতে চায়। আমরা বিনয়ের সঙ্গে জানাতে চাই, আপনার যেকোনো সিদ্ধান্তই আমাদের শিরোধার্য। কিন্তু চলমান বাস্তবতায় এ মুহূর্তে এ ধরনের সিদ্ধান্ত দলের জন্য আত্মঘাতী হতে পারে। একইসঙ্গে দীর্ঘমেয়াদি ক্ষতির কারণও হতে পারে।’

 

লিখিত বক্তব্যে পাইলট তিনটি দাবি তুলে ধরেন। দাবিগুলো হলো- বয়সের সুনির্দিষ্ট সীমারেখা না রেখে ছাত্রদলের কমিটি গঠনের চিরাচরিত ঐতিহ্যকে অনুসরণ করে একটি ধারাবাহিক কমিটি আগামী বছরের ১ জানুয়ারি পর্যন্ত গঠন করতে হবে; পরবর্তী সময়ে স্বল্পমেয়াদি একটি ধারাবাহিক কমিটি গঠন করতে হবে তাহলে সংগঠন গতিশীল হবে এবং বর্তমান কেন্দ্রীয় সংসদের সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়, মহানগর ও কলেজ কমিটির সমন্বয়ে ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কমিটি গঠিত হলে সংগঠন আরও গতিশীল হবে।

 

২০১৪ সালের অক্টোবর রাজীব আহসানকে সভাপতি ও আকরামুল হাসানকে সাধারণ সম্পাদক করে ছাত্রদলের কমিটি ঘোষণা করেছিলেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। দুই বছর মেয়াদি এ কমিটির মেয়াদ শেষ হয় ২০১৬ সালের অক্টোবর মাসেই। ফলে গত আড়াই বছরেরও বেশি সময় ধরে মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটি দিয়ে চলছে সংগঠনটির কার্যক্রম। নতুন কমিটির লক্ষ্যে ইতোমধ্যে ছাত্রদলের সাবেক নেতাদের দায়িত্ব দেন তারেক রহমান। কিন্তু তাতে বহু দিন গড়ালেও এখন পর্যন্ত সংগঠনটির নতুন কমিটির  দেখা মেলেনি।

 

তারেক রহমানের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সের পর শিগগিরই ছাত্রদলের নতুন নেতৃত্ব নির্বাচিত হবে এমনটাই প্রত্যাশা অধিকাংশ ছাত্রদলের নেতাকর্মীর।

 

কেএইচ/এনডিএস/