খেলাধুলা

আত্মহত্যা করতে চেয়েছিলেন পাকিস্তানের কোচ!

পাকিস্তানকে ‘আনপ্রেডিক্টেবল’ কেন বলা সেটার প্রমাণ মিলেছে এবারের বিশ্বকাপেও। অপরাজেয় ইংল্যান্ডকে হারিয়ে দিয়ে রীতিমত আলোড়ন সৃষ্টি করে সরফরাজ আহমেদের দল। গতকালও দারুণ এক জয় তুলে নিয়েছে তারা। হারিয়ে দিয়েছে ফেভারিট হিসেবে টুর্নামেন্ট শুরু করা দক্ষিণ আফ্রিকাকে। এ জয়ে প্রোটিয়াদের এবারের আসর থেকেও ছিটকে দিয়েছে পাকিস্তান।

লর্ডসে প্রথম পর্বের ম্যাচে গতকাল দক্ষিণ আফ্রিকাকে ৪৯ রানে হারায় পাকিস্তান। এ জয়ে সেমিফাইনালে যাওয়ার আশা কিছুটা হলেও বাঁচিয়ে রেখেছে মিকি আর্থারের ছাত্ররা। ভারতের বিপক্ষে লজ্জাজনক হারের পর কিছুটা তাই স্বস্তিতে রয়েছে ৯২ এর বিশ্বজয়ীরা।

প্রোটিয়াদের বিপক্ষে জয়ের আগে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারতের কাছে লজ্জাজনকভাবে হারের পর গোটা পাকিস্তান দলকে নিয়ে সমালোচনার ঝড় ওঠে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম থেকে শুরু করে বিশ্ব মিডিয়ায়। সবাই পাকিস্তানের খেলোয়াড়দের রীতিমত ধুয়ে দেন। ভক্ত-সমর্থকরাও বাদ দেননি। সমালোচনার মিছিলে যোগ দিয়েছিলেন সাবেক ক্রিকেটাররাও।

এদিকে এই সমালোচনার তীরে বিদ্ধ হয়ে আত্মহননের পথ বেছে নিতে চেয়েছিলেন বলে জানিয়েছেন পাকিস্তান দলের কোচ মিকি আর্থার। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে জয়ের পর আর্থার বলেন, ‘গত রোববার, আমি আত্মহত্যা করতে চেয়েছিলাম। কিন্তু একটি ভালো পারফরম্যান্স সব রুখে দিয়েছে। আমরা আমাদের ক্রিকেটারদের বলেছিলাম শুধুমাত্র একটা ভালো পারফরম্যান্স দরকার। ফাখর জামান এবং ইমাম-উল-হক আজ (গতকাল) যেভাবে শুরু করেছিল তাতে আমাদের স্নায়ুচাপ কমে গিয়েছিল।’

তিনি আরও বলেন, ‘ঘটনাগুলো সব দ্রুত ঘটে। আপনি একটি ম্যাচ হারলেন, আরও একটি ম্যাচ হারলেন। এটা বিশ্বকাপ। মিডিয়ার সমালোচনা, মানুষের আশা- প্রত্যাশা নিয়ে আপনাকে বাঁচা-মরার লড়াইয়ে নামতে হয়েছে। আমরা সবাই বাজে অবস্থার মধ্যে ছিলাম।'

তবে কঠোর সমালোচনা শোনার পরেও কখনো শিষ্যদের মনে অনুপ্রেরণা জোগাতে কমতি রাখেননি আর্থার। তাই তো দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ম্যাচের আগে জয়ের জন্য আত্মবিশ্বাসের কোন অভাব ছিল না তাদের মনে, ‘একটি মাত্র ভালো পারফরম্যান্সই আপনাকে হিরো অথবা ভিলেন বানিয়ে দিতে পারে। আমি আত্মবিশ্বাসী ছিলাম যে আমার দল জিততে পারবে। কেননা আমার ক্রিকেটারদের মধ্যে প্রতিভার কোনো কমতি নেই’- বলেন আর্থার।

এএইচএস/এসএস/এমকেএইচ