আন্তর্জাতিক

ইরান থেকে তেল আমদানি করলেই মার্কিন নিষেধাজ্ঞা

ট্রাম্প ক্ষমতায় আসার পর থেকে ইরানের বিরুদ্ধে মার্কিন নিষেধাজ্ঞা ব্যাপক হারে বেড়েছে। এবার ট্রাম্প প্রশাসন ঘোষণা দিল, যদি কোনো দেশ ইরান থেকে তেল আমদানি করে তাহলে সেই দেশের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হবে। এতে ছাড় পাবে না কেউই।

যুক্তরাষ্ট্রের ইরান বিষয়ক বিশেষ দূত ব্রায়ান হুক শুক্রবার এমন কথা বলেছেন। ইরানের অপরিশোধিত তেল বিক্রি নিয়ে হুক বলেন, ইরানের তেল আমদানি করা যেকোনো দেশের ওপরই যুক্তরাষ্ট্র নিষেধাজ্ঞা আরোপ করবে। এ ব্যাপারে কোনোরকম ছাড় দেয়া হবে না।

মার্কিন ওই কূটনীতিক বলেন, ‘ইরানের অশোধিত তেলের যে কোনো আমদানির ওপরই নিষেধাজ্ঞা দেব আমরা। ইরানে অশোধিত তেল চীন বিক্রির বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে বলেও জানান হুক। গেল সপ্তাহে ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহ খোমেনিসহ অন্যান্য কর্মকর্তাদের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে ট্রাম্প প্রশাসন।

আরও পড়ুন> ইরানের পক্ষ নিল আরব আমিরাত

মধ্যপ্রাচ্যে অতিরিক্ত মার্কিন সেনা ও সমরাস্ত্র মোতায়েনের পর তেহরান-ওয়াশিংটনের মধ্যে চরম উত্তেজনার সূত্রপাত। এরপর ওই অঞ্চলে তেলের ট্যাংকারে হামলার দুটি ঘটনায় ইরানকে দায়ী করলে তা প্রকট আকার ধারণ করে।

সর্বশেষ মার্কিন সামরিক বাহিনীর একটি স্পাই ড্রোন ইরান ভূপাতিত করলে সেই চরম উত্তেজনা আরও বেড়ে যুদ্ধাবস্থায় রুপ নেয়। ড্রোন ভূপাতিত করার প্রতিশোধ নিতে ইরানে হামলার নির্দেশ দিয়েও পরে তা থেকে সরে আসেন ট্রাম্প।

২০১৫ সালে বিশ্বের ছয় পরাশক্তির সঙ্গে ইরানের স্বাক্ষরিত পরমাণু চুক্তি থেকে গত বছর নিজের দেশকে প্রত্যাহার করে নেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। তারপর থেকে তেহরানের ওপর পুরোনো সব নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহাল করাসহ নতুন করে আরও নিষেধাজ্ঞা চাপাতে থাকেন তিনি।

এসএ/এমকেএইচ