দেশজুড়ে

নয়ন বন্ডের কর্মকাণ্ড নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছিল ছাত্রলীগও

সাব্বির হোসেন নয়ন ওরফে নয়ন বন্ড। এ মুহূর্তে সব থেকে আলোচিত এবং সমালোচিত এক অপরাধীর নাম। যাকে গ্রেফতার করতে তিনদিন ধরে নির্ঘুম রাত কাটাচ্ছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর শত শত সদস্য। বরগুনার আলোচিত রিফাত হত্যা মামলার এক নম্বর আসামি এ নয়ন বন্ড।

শুধুমাত্র রিফাত শরীফ হত্যাকাণ্ডের পর আলোচনায় আসেনি নয়ন বন্ড। এর আগে ২০১৮ সালের ২৮ এপ্রিল বরগুনা প্রেসক্লাবে সাব্বির হোসেন নয়ন ওরফে নয়ন বন্ডের অপরাধের ফিরিস্তি তুলে সংবাদ সম্মেলন করে বরগুনা জেলা ছাত্রলীগ। বরগুনা জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জুবায়ের আদনান অনিক ও সাধারণ সম্পাদক তারভীর হোসাইনের লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সভাপতি জুবায়ের আদনান অনিক।

সেই সংবাদ সম্মেলন সম্পর্কে বরগুনা জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জুবায়ের আদনান অনিক জাগো নিউজকে বলেন, নয়ন বন্ডের অত্যাচারে অতিষ্ট ছিলেন বরগুনার সাধারণ মানুষ। তার বেপরোয়াপনার কারণে আতঙ্কিত ছিল বরগুনার সরকারি কলেজে আসা সাধারণ শিক্ষার্থীরাও। এছাড়াও তার মাদক ব্যবসার কারণে বিপদগামী হচ্ছিল বরগুনার শত শত তরুণ-যুবক। এসব কারণে দায়বদ্ধতার জায়গা থেকে নয়নের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করে বরগুনা জেলা ছাত্রলীগ।

তিনি আরও বলেন, সেই সংবাদ সম্মেলনের সংবাদ দেশের প্রধান প্রধান গণমাধ্যমে প্রকাশিত হওয়ার পরও নয়নের বিরুদ্ধে কোনো ধরনের ব্যবস্থা নেয়ার খবর আমরা পাইনি। বরং একাধিক মামলা ও ছাত্রলীগের সংবাদ সম্মেলনের পরও নয়ন বরগুনায় বীরদর্পে ঘুরে বেড়িয়েছে।

এ দিকে নয়ন বন্ডের বিরুদ্ধে আটটি মামলা রয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। এসব মামলায় নয়ন বন্ডকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেছে পুলিশ।

এ বিষয়ে বরগুনার পুলিশ সুপার মো. মারুফ হোসেন বলেন, রিফাত শরীফের হত্যাকারীদের গ্রেফতারে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা কাজ করছে। আসামিদের গ্রেফতার এড়াতে কোনো চাপ নেই। এ নারকীয় হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের গ্রেফতার এড়াতে যদি কোনো চাপ আসে, সেই চাপ উপেক্ষা করার শক্তি এবং সামর্থ বাংলাদেশ পুলিশের আছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

মিরাজ/এমএএস/এমএসএইচ