দেশজুড়ে

‘বনলতা এক্সপ্রেস’ পেয়ে উচ্ছ্বসিত চাঁপাইনবাবগঞ্জবাসী

ঢাকা থেকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পর্যন্ত সরাসরি আন্তঃনগর ‘বনলতা এক্সপ্রেস’ ট্রেনের উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বুধবার বেলা সাড়ে ১১টার সময় গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে তিনি ট্রেনটির উদ্বোধন ঘোষণা করেন।

এই উপলক্ষে চাঁপাইনবাবগঞ্জ রেল স্টেশন বর্ণিল রূপে সাজানো হয়। ডিজিটাল স্ক্রিনে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানটি সরাসরি দেখানো হয়। ‘বনলতা এক্সপ্রেস’ ট্রেন পেয়ে উচ্ছ্বসিত চাঁপাইনবাবগঞ্জবাসী।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ রেল স্টেশনের অনুষ্ঠানে রাজশাহী সিটি করপোরশনের মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক এমপি মো. আব্দুল ওদুদ, জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি সাবেক সংসদ সদস্য মুহা. জিয়াউর রহমান, সহ-সভাপতি সাবেক সদর উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ মো. রুহুল আমিন, সংসদ সদস্য ডা. সামিল উদ্দিন আহমেদ শিমুল, সংরক্ষিত নারী সংসদ সদস্য ফেরদৌসী ইসলাম জেসী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

‘বনলতা এক্সপ্রেস’ ট্রেন উদ্বোধনের পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একজন আম ব্যবসায়ী ও একজন শিক্ষার্থীর সঙ্গে কথা বলেন। এ সময় প্রধানমন্ত্রী চাঁপাইনবাবগঞ্জের আম ট্রেনযোগে পরিবহনসহ বিদেশে রফতানির বিষয়ে সচেষ্ট হবেন বলে জানান। এছাড়াও চাঁপাইনবাবগঞ্জের উন্নয়নে তাঁর প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে বলে ঘোষণা দেন।

বুধবার উদ্বোধন হলেও ট্রেনটি চলাচল শুরু হবে বৃহস্পতিবার ভোর ৫টা ৫০ মিনিটে। এই ট্রেনে চাঁপাইনবাবগঞ্জবাসীর জন্য একটি এসি ও দুটি নন এসি বগিতে আসন বরাদ্দ থাকবে ২৬৪টি। যথারীতি শুক্রবার বন্ধ দিয়ে সপ্তাহে ছয়দিন চলাচল করবে এই ট্রেন।

ট্রেনটি চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে ভোর ৫টা ৫০মিনিটে ছেড়ে ঢাকায় পৌঁছাবে বেলা সাড়ে ১১টায় এবং বেলা সোয়া ১টায় ঢাকা থেকে ছেড়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌঁছাবে সন্ধ্যা ৭টায়।

প্রসঙ্গত, চাঁপাইনবাবগঞ্জ হতে ঢাকা পর্যন্ত সরাসরি কোন ট্রেন না থাকায় দীর্ঘদিন আন্দোলন সংগ্রাম করেছিলেন এই জেলার মানুষ। প্রেক্ষিতে ২০১৩ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চাঁপাইনবাবগঞ্জ এসে সরাসরি আন্তঃনগর ট্রেন চালুর প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। এরপর তৎকালীন সংসদ সদস্য আব্দুল ওদুদের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় চাঁপাইনবাবগঞ্জ রেল স্টেশনের অবকাঠামোগত উন্নয়নসহ রেল ওভার ব্রিজ, রেললাইন সংস্কার, আমনুরা বাইপাস রেল স্টেশন নির্মাণ ও রেল ওয়াশের ব্যবস্থার পর আজ ‘বনলতা এক্সপ্রেস’ ট্রেনটি উদ্বোধন করা হলো।

মোহা. আব্দুল্লাহ/আরএআর/পিআর