জাতীয়

বঙ্গবন্ধু বেঁচে থাকলে বিশ্বনেতা হতেন

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যার ঘটনায় দণ্ডপ্রাপ্ত পলাতক খুনিদের দেশে এনে রায় চূড়ান্ত করার প্রক্রিয়া এগিয়ে চলছে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও পানিসম্পদ উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু বেঁচে থাকলে বিশ্বনেতা হতেন।

বুধবার (১৪ আগস্ট) রাজধানীর মতিঝিলে পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রধান কার্যালয়ে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে পানি উন্নয়ন বোর্ড আয়োজিত কোরআন তেলাওয়াত, দোয়া ও মিলাদ মাহফিল-পূর্ব আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

এনামুল হক শামীম বলেন, ‘১৫ আগস্টের খুনি ও ঘাতকদের বিচার এ দেশেই হবে ইনশাআল্লাহ। পাকিস্তানি দোসর ঘাতকের দল মনে করেছিল জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যা করে তার নাম চিহ্ন মুছে দেবে। কিন্তু পারেনি। কারণ স্বাধীনতায় বিশ্বাসী বাংলাদেশের প্রত্যেকটি মানুষের ভেতর বঙ্গবন্ধু ও স্বাধীনতার চেতনা রয়েছে। এ চেতনায় দেশ এগিয়ে চলেছে। আজকে শোককে শক্তিতে পরিণত করে সামনের দিকে এগিয়ে যেতে হবে।’

তিনি বলেন, “আগস্ট মাস বাঙালির শোকের মাস। ১৫ আগস্টের কাল রাতে জাতির পিতা শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যা করা হলেও তার আদর্শকে হত্যা করা যায়নি। কারণ বঙ্গবন্ধু একটি ইতিহাস, একটি স্বাধীন বাংলাদেশ ও একটি স্বাধীন জাতিসত্তা। বঙ্গবন্ধুর অপর নাম ‘বাংলাদেশ’।”

পানিসম্পদ উপমন্ত্রী বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু জন্মগ্রহণ করেছিলেন বলেই বাংলাদেশ নামক রাষ্ট্রের জন্ম হয়েছে। এজন্যই বিশ্বে শেখ মুজিবের দেশ হিসেবে বাংলাদেশ পরিচিতি পেয়েছে। বঙ্গবন্ধু বেঁচে থাকলে বিশ্বনেতা হতেন। তাই তো দেশীয়-আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারকে হত্যা করা হয়।’

তিনি বলেন, ‘এই শোকের মাসে আমরা শোককে শক্তিতে পরিণত করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যাব। পাকিস্তানি দোসর বিএনপি-জামায়াত যতই ষড়যন্ত্র করুক না কেন, আওয়ামী লীগের উন্নয়নকে দাবিয়ে রাখতে পারবে না।’

তিনি বলেন, ‘উন্নত বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে উন্নত ও সমৃদ্ধ দেশ হিসেবে গড়ে তুলবেন তিনি।’

পানি উন্নয়ন বোর্ডের মহাপরিচালক মাহফুজুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মাহমুদুল হাসান।

এইউএ/এসআর/এমএস