দেশজুড়ে

বান্দরবানে অপহৃতদের মধ্যে দুই চালককে ছেড়েছে সন্ত্রাসীরা

বান্দরবানের রুমায় অপহৃত ৩ চালকের মধ্যে দুইজনকে মুক্তি দিয়েছে সন্ত্রাসীরা। অপহরণের একদিন পর চালক মোহাম্মদ মিজান ও নয়ন জলদাসকে মুক্তি দেয়া হয়েছে। তবে অপর গাড়ি চালক বাসু কর্মকারকে এখনও মুক্তি দেয়নি সন্ত্রাসীরা ।

বুধবার বিকেলে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন রুমা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নজরুল ইসলাম।

তিনি আরও জানান, রুমার প্রাংসা এলাকায় অপহৃত তিনজনের মধ্যে দুইজনকে ছেড়ে দিয়েছে সন্ত্রাসীরা। মুক্তিপণের কোনো খবর পাওয়া যায়নি বলে জানান ওসি।

ছেড়ে দেয়া গাড়িচালকের সহকারী মিল্টন কর্মকার বলেন, সোমবার বিকেলে চারটার দিকে মিনঝিরি রাস্তার মাথায় ১০-১২ জন সশস্ত্র সন্ত্রাসী তাদের গাড়ি আটক করে। গাড়ি আটকের পর প্রথমে জানতে চায় গাড়িগুলো রুমা পরিবহন মালিক সমিতির কীনা। মালিক সমিতির গাড়ি বললে চালকদের থেকে সহকারী ও একটি গাড়িতে থাকা সাতজন যাত্রীকে আলাদা করা হয়। এ সময় তারা আতঙ্কে কাঁপছিলেন। পরে সন্ত্রাসীরা যাত্রী ও তাদের চলে যাওয়ার নির্দেশ দেয়। সন্ত্রাসীরা তখনও তিন গাড়িচালকসহ মিনঝিরি রাস্তার মাথায় ছিল।

এদিকে পাহাড়ে অপহরণ, খুন, সন্ত্রাস ও চাদাঁবাজি বন্ধে সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারের দাবিতে বান্দরবানে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে বাঙালি ছাত্র পরিষদ ও সচেতন নাগরিক সমাজ।

বুধবার জেলা শহরের বাজার এলাকা থেকে মিছিলটি বের হয়ে শহর ঘুরে বঙ্গবন্ধু মুক্ত মঞ্চের সামনে এসে শেষ হয়। মিছিলে দুই সংগঠনের শত শত নেতাকর্মী অংশগ্রহণ করেন।

পরে একই স্থানে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, সচেতন নাগরিক সমাজের নেতা কাজি মুজিবর রহমান, বাঙালি ছাত্র পরিষদের জেলা সভাপতি মিজানুর রহমানসহ অনেকে।

এসময় বক্তারা আগামী ৩ দিনের মধ্যে রুমা উপজেলায় জিপ গাড়ির ড্রাইভারকে মুক্ত না করলে কঠোর কর্মসূচি দেয়ার ঘোষণা দেন। এদিকে মিছিল ও সমাবেশকে ঘিরে জেলাজুড়ে পুলিশি নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত সোমবার বিকেলে যাত্রী নামিয়ে দিয়ে মুননুয়ামপাড়া ও পুনর্বাসনপাড়া থেকে রুমা উপজেলা সদরে ফেরার পথে মিনঝিরি রাস্তার মাথা এলাকায় তিন গাড়িচালককে অপহরণ করা হয়।

সৈকত দাশ/এমএএস/এমএস