দেশজুড়ে

বিয়ের প্রলোভনে কিশোরীকে ধর্ষণ, প্রেমিক আটক

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিয়ের প্রলোভনে এক কিশোরীকে (১২) তার প্রেমিক ইমন (১৫) ও বন্ধুরা মিলে টানা দুইদিন ধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। আশুগঞ্জ উপজেলার বগৈর গ্রামে এই ঘটনা ঘটেছে।

শুক্রবার ওই কিশোরীকে মুমূর্ষু অবস্থায় আশুগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। সে উপজেলার দুর্গাপুর গ্রামের বাসিন্দা। এ ঘটনার পর অভিযুক্ত ইমনকে আটক করেছে পুলিশ। সে একই উপজেলার মৈশার গ্রামের কালাম মিয়ার ছেলে।

ধর্ষিতার পরিবার জানিয়েছে, বুধবার রাত ৮টার দিকে দুর্গাপুর ইউনিয়নের খড়িয়ালা গ্রামের রাইডার লেদার ব্যাগস অ্যান্ড লাগেজ ফ্যাক্টরি থেকে কাজ শেষে বাড়ি ফেরার পথে ওই কিশোরীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে প্রেমিক ইমন বগৈর গ্রামের একটি বাড়িতে নিয়ে ধর্ষণ করে। এ সময় ইমনের কয়েক বন্ধুও ওই কিশোরীকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। টানা দুইদিন ধর্ষণের পর শুক্রবার সকালে মুমূর্ষু অবস্থায় ওই কিশোরীকে রিকশায় তুলে দেয় ইমন। পরে দুপুরে তাকে আশুগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মো. আলমগীর হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করে জাগো নিউজকে জানান, বিয়ে কথার কথা বলে ওই কিশোরীকে ধর্ষণ করেছে তার কিশোর প্রেমিক। পুলিশ ধর্ষক ইমনকে আটক করেছে।

তিনি আরও বলেন, ধর্ষিতার পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় মামলা দিলে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আজিজুল সঞ্চয়/এমএমজেড