দেশজুড়ে

ইয়াবা-অস্ত্রসহ সিলেটে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা পীযুষ গ্রেফতার

সিলেট জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি, সাবেক ছাত্রনেতা পীযুষ কান্তি দে এবং তার তিন সহযোগীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৯। বুধবার রাত সাড়ে ৭টায় নগরের মির্জাজাঙ্গাল এলাকার একটি বাসায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

এ সময় তাদের কাছ থেকে একটি বিদেশি রিভলবার, দুই রাউন্ড গুলি ও বিপুল পরিমাণ ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে র‍্যাব। পীযুষ ছাড়াও গ্রেফতার বাকিরা হলেন বাপ্পা পাল, মিন্টু রায় ও আরও একজন।

বুধবার মধ্যরাতে র‍্যাব-৯ এর মিডিয়া সেল থেকে পাঠানো এক ক্ষুদেবার্তায় জানানো হয়, সিলেটের কোতয়ালী থানা এলাকা থেকে একটি বিদেশি রিভলভার, দুই রাউন্ড গুলি ও বিপুল পরিমাণ ইয়াবাসহ শীর্ষ সন্ত্রাসী পীযুষ কান্তি দেকে তার তিন সহযোগীসহ গ্রেফতার করা হয়েছে।

তবে প্রত্যক্ষদর্শী একাধিক ব্যক্তি জানান, সন্ধ্যা ৭টার দিকে মির্জাজাঙ্গালে পীযুষের আস্তানা ঘেরাও করে ফেলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বিপুল সংখ্যক সদস্য। এরপর ভেতর থেকে পীযুষসহ চারজনকে ধরে গাড়িতে করে নিয়ে যায় তারা।

পীযুষ সিলেট মহানগর ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক ছিলেন। গত ৬ আগস্ট জিন্দাবাজারে পাঁচ ভাই রেস্টুরেন্টের সামনে তিন প্রবাসীর ওপর হামলা চালায় পীযুষ অনুসারী ছাত্রলীগ কর্মীরা। এতে গুরুতর আহত হন তারা। এ সময় তাদের প্রাইভেটকারও ভাঙচুর করা হয়। এ নিয়ে ব্যাপক সমালোচনার সৃষ্টি হয়।

এ ঘটনায় ৭ আগস্ট আহতদের চাচাত ভাই জাহাঙ্গীর আলম বাদী হয়ে কোতয়ালী থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। এই মামলার পর থেকে নিজেকে অনেকটাই গুটিয়ে নেন পীযুষ। গ্রেফতার এড়াতে নিজের আস্তানায়ও অনেকদিন অনুপস্থিত ছিলেন। বুধবার ফের আস্তানায় ফিরেই গ্রেফতার হন তিনি।

ছামির মাহমুদ/বিএ