খেলাধুলা

সিপিএলে সুপার ওভারের রোমাঞ্চ

বিশ্বকাপ ফাইনালের কথা এত দ্রুত ভুলে যাওয়ার কথা নয় ক্রিকেটপ্রেমীদের। সুপার ওভারের রোমাঞ্চের পরও জয়-পরাজয় নির্ধারণ হয়নি। শেষ পর্যন্ত বাউন্ডারি ব্যবধান ধরে নিয়ে নিয়ে ইংল্যান্ড বিশ্বচ্যাম্পিয়ন। তবে, এবার বাউন্ডারি ব্যবধানে যেতে হয়নি; কিন্তু ঠিকেই সুপার ওভার রোমাঞ্চ তৈরি করতে সক্ষম হয়েছে ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগের একটি ম্যাচ।

সেন্ট কিটসের ওয়ার্নার পার্ক স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত এই ম্যাচে মুখোমুখি ছিল স্বাগতিক সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস প্যাট্রিয়টস এবং ত্রিনবাগো নাইটরাইডার্স। সুপার ওভারে ১৩ রানে সেন্ট কিটসের কাছে হেরে গেছে ত্রিনবাগো এবং এটাই এবার তাদের প্রথম পরাজয়।

টস জিতে ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্সকে ব্যাট করতে পাঠায় সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিসের অধিনায়ক কার্লোস ব্র্যাথওয়েট। ব্যাট করতে নেমে লেন্ডল সিমন্সের ব্যাটে ৪ উইকেট হারিয়ে ২১৬ রানের বিশাল ইনিংস গড়ে তোলে ত্রিনবাগো। ৪৫ বলে ৯০ রানের টর্নেডো ইনিংস খেলেন তিনি। ৯টি বাউন্ডারির সঙ্গে ৬টি ছক্কা মারেন সিমন্স।

এছাড়া ২৮ রান করেন কলিন মুনরো, ড্যারেন ব্র্যাভো ১২ বলে অপরাজিত ২৪, জিমি নিশাম ১৩ বলে অপরাজিত ২২ রান করেন। জবাব দিতে নেমে শুরুতে সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস প্যাট্রিয়টস কিছুটা বিপদে পড়লেও মিডল অর্ডারে কার্লোস ব্র্যাথওয়েট মাত্র ৩০ বলে ৬৪ রান করে নিজের দলকে সমতায় নিয়ে আসেন। কিন্তু ম্যাচ শেষ করতে পারেননি। সেন্ট কিটস ৭ উইকেটে ২১৬ রানে থেমে যায়।

ফলে ম্যাচ গড়ায় সুপার ওভারে। সেখানেও বাজিমাত করেন কার্লোস ব্র্যাথওয়েট। প্রথমে ব্যাট করতে নেমে সেন্ট কিটস করে ১৮ রান। এর মধ্যে ১৭ রানই করেন ব্র্যাথওয়েট। জবাব দিতে নেমে ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্স করে ১ উইকেট হারিয়ে করে মাত্র ৫ রান। ওই ওভার বল করেন ব্র্যাথওয়েট নিজে এবং দলকে এনে দেন দুর্দান্ত এক জয়।

এই জয়ে প্লে অফের দৌড়ে দলকে টিকিয়ে রাখলেন সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিসের অধিনায়ক কার্লোস ব্র্যাথওয়েট। ৭ ম্যাচে তাদের পয়েন্ট ৬। রয়েছে তৃতীয় স্থানে। ৪ ম্যাচে ৮ পয়েন্ট নিয়ে গায়ানা অ্যামাজন ওয়ারিয়র্স রয়েছে শীর্ষে। ৫ ম্যাচে ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্স ৮ পয়েন্ট নিয়ে রয়েছে দ্বিতীয় স্থানে।

আইএইচএস/পিআর