দেশজুড়ে

বিয়ের কথা বলে কিশোরীর সঙ্গে যা যা হলো

খুলনার ফুলতলায় বিয়ের প্রলোভনে এক কিশোরীকে (১৫) ধর্ষণ ও পরবর্তীতে অবৈধ গর্ভপাতের ঘটনায় ধর্ষক ও তার দুই সহযোগীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বুধবার দুপুরে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতাররা হলেন যশোরের ভাতুড়িয়া দাড়িপাড়া গ্রামের কাজী হাবিবুর রহমানের ছেলে কাজী রাসেল (১৯), রাসেলের বড় ভাই কাজী মিরন (২৫) ও মিরনের স্ত্রী প্রিয়া খাতুন (২০)।

পুলিশ ও পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, ওই কিশোরী ফুলতলায় তার চাচার বাড়িতে থেকে পড়াশোনা করে। গত ৪ মাস আগে কাজী রাসেল ফুলতলায় তার মামাবাড়িতে এসে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ওই কিশোরীকে কয়েকদিন ধরে ধর্ষণ করে। সম্প্রতি সে অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে ডাক্তারের কাছে নেয়া হয়। বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর চিকিৎসক তার অন্তঃসত্ত্বার বিষয়টি নিশ্চিত করেন। পরে রাসেলের বড় ভাই কাজী মিরন ও তার স্ত্রী প্রিয়া খাতুন কৌশলে কিশোরীকে একটি ক্লিনিকে নিয়ে অবৈধভাবে গর্ভপাত করান।

বিষয়টি জানাজানি হলে বুধবার দুপুরে ওই কিশোরীর চাচা বাদী হয়ে কাজী রাসেল, কাজী মিরান ও প্রিয়া খাতুনকে আসামি করে ফুলতলা থানায় মামলা করেন। মামলার পরে বুধবার দুপুরে তিন আসামিকেই গ্রেফতার করে পুলিশ।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও ফুলতলা থানার এসআই রতনুজ্জামান জানান, এ ঘটনায় এজাহারভুক্ত তিন আসামিকেই গ্রেফতার করা হয়েছে। বিকেলে তাদের খুলনার অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের আদালতে নেয়া হলে বিচারক আসামি রাসেলের জবানবন্দি গ্রহণ শেষে তিনজনকেই জেলহাজতে পাঠিয়েছেন। এদিকে ভিকটিমের ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে।

আলমগীর হান্নান/এমবিআর/পিআর