দেশজুড়ে

সাড়ে ৭ কোটি টাকা আত্মসাৎ, পাটকল কর্মকর্তার জামিন নামঞ্জুর

খুলনায় বাতিল হওয়া পাট পণ্যের ওজনে কারচুপি করে প্রায় সাড়ে ৭ কোটি টাকা আত্মসাৎ মামলায় খালিশপুর জুট মিলের ব্যবস্থাপক (উৎপাদন) লিয়াকত হোসেনের জামিন আবেদন ফের নামঞ্জুর করেছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার দুপুরে খুলনার জ্যেষ্ঠ বিশেষ জজ আদালতের বিচারক মো. শহীদুল ইসলাম এই আদেশ দেন। দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) পিপি খন্দকার মজিবর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এর আগে গত ২৬ সেপ্টেম্বর জামিনের আবেদন করলে ওই দিনও সেই আবেদন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, খুলনার প্লাটিনাম জুবলি জুট মিলসে ব্যবস্থাপক হিসেবে দায়িত্বে পালনকালে লিয়াকত হোসেন মিলের ওয়েস্টেজ রোলের (বাতিল হওয়া পাট পণ্য) ওজনে কারচুপি করে অনুমোদিত ঘাটতির তুলনায় বেশি ঘাটতি দেখিয়ে ৭ কোটি ৪৩ লাখ ৯১ হাজার ২৭৭ টাকা আত্মসাৎ করেন। এ ঘটনায় ২০১৬ সালের ৯ ডিসেম্বর খালিশপুর থানায় মামলা করে দুদক (জিআর-৪০/১৬)।

মামলার অন্য আসামিরা হচ্ছেন- বাংলাদেশ পাটকল কর্পোরেশনের মহাব্যবস্থাপক (সাময়িক বরখাস্ত) মো. জাহাঙ্গীর হোসেন ও বিজেএমসি খুলনা আঞ্চলিক কার্যালয়ের ব্যবস্থাপক (উৎপাদন) শংকর চন্দ্র ভূঁইয়া।

গত ২৬ আগস্ট এই মামলায় তিনজনকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র দিয়েছে দুদক।

আলমগীর হান্নান/এমএমজেড/পিআর