আইন-আদালত

মেননের আসন শূন্য ঘোষণার দাবিতে রিট

একাদশ সংসদ নির্বাচন নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করায় বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি ও সাবেক মন্ত্রী রাশেদ খান মেননের সংসদ সদস্য পদ শূন্য ঘোষণার দাবিতে রিট করেছেন এক আইনজীবী।

রোববার (৮ ডিসেম্বর) হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় রিটটি দায়ের করেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ইউনুছ আলী আকন্দ।

রিটে প্রধান নির্বাচন কমিশনার, আইন সচিব, ঢাকা বিভাগীয় রিটার্নিং কর্মকর্তা, রাশেদ খান মেননসহ পাঁচজনকে বিবাদী করা হয়েছে। রিটের বিষয়টি জাগো নিউজকে নিশ্চিত করেছেন ইউনুছ আলী আকন্দ নিজেই।

রিটটি হাইকোর্টের বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চে শুনানির জন্য উপস্থাপন করা হবে বলেও জানান এই আইনজীবী।

রিটে রাশেদ খান মেননকে ঢাকা-৮ আসনের সংসদ সদস্য পদ থেকে কেন শূন্য ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারির আরজি জানানো হয়েছে। একইসঙ্গে তার সদস্য পদ শূন্য রাখার নির্দেশনা চাওয়া হয়।

রিটকারী আইনজীবী ইউনুছ আলী আকন্দ জানান, নির্বাচনে রাশেদ খান মেনন নিজেই বরিশালের এক সভায় ঘোষণা দিয়েছেন ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর জাতীয় সংসদ নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে হয়নি। যা তিনি নিজেই বিশ্বাস করেন। এই অবস্থায় তিনি পদত্যাগ না করায় রিট করা হয়েছে। মেননের বক্তব্য অনুযায়ী তার আসন ঢাকা-৮ এর ভোটে দুর্নীতি হয়েছে কিনা- তাও তদন্ত করতে হবে।

এছাড়া রাশেদ খান মেনন লাভজনক পদে থেকে নির্বাচন করেছেন, যা আরপিওর (গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ) ২০ ধারার লঙ্ঘন এবং তার নির্বাচনী পোস্টারে আওয়ামী লীগ সভাপতির ছবি ব্যবহার করে আচরণবিধি লঙ্ঘন করেছেন বলেও জানান রিটকারী আইনজীবী।

উল্লেখ্য, গত ১৯ অক্টোবর বরিশালে এক অনুষ্ঠানে ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন বলেন, ‘আমিও নির্বাচিত হয়েছি। তারপরও আমি সাক্ষ্য দিচ্ছি, ওই নির্বাচনে জনগণ ভোট দিতে পারেনি। এমনকি পরবর্তীতে উপজেলা এবং ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনেও ভোট দিতে পারেনি দেশের মানুষ।’

এফএইচ/বিএ/পিআর