আন্তর্জাতিক

বর দেরিতে আসায় পাশের বাড়ির যুবককে বিয়ে!

সময়কে অবহেলা করার ফল পেলেন ভারতের উত্তরপ্রদেশের বিজনৌরের ধামপুরের এক যুবক। সব ঠিকঠাক থাকা সত্ত্বেও বিয়ে বাড়িতে পৌঁছাতে দেরি হওয়ায় এক প্রতিবেশী যুবককে বিয়ে করে ফেলেছেন তার পছন্দের কনে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, যৌতুক নিয়ে কনেপক্ষের সঙ্গে ঝামেলা চলছিল বরপক্ষের। এ কারণে নির্ধারিত সময়ের অনেক পরে বিয়ে বাড়িতে আসেন বর। বাজি পুড়িয়ে উল্লাস করতে করতে বর যখন কনে বাড়ি পৌঁছায়, ততক্ষণে অনেক সময় পেরিয়ে গেছে। আর এতেই বেঁকে বসে কনে। যে ছেলের সময়জ্ঞান নেই, তাকে বিয়ে করার প্রশ্নই ওঠে না বলে পরিষ্কার জানিয়ে দেয় পাত্রী।

পুলিশ জানায়, কয়েক মাস আগেই একটি গণবিবাহ অনুষ্ঠানে তাদের বিয়ে হয়। কিন্তু বিয়ে হলেও তখন শ্বশুরবাড়ি যাননি কনে। ঠিক হয়েছিল, সামাজিক মতে আবারও বিয়ে হবে তাদের। তারপরই বরের হাত ধরে শ্বশুরবাড়ি যাবে। সবকিছু ঠিকঠাক। কথা হয়, দুপুর ২টার সময় বিয়ে করতে কনের বাড়ি পৌঁছে যাবে বর। কিন্তু বিয়ের দিন দেখা যায়, দুপুর গড়িয়ে বিকেল হলেও বর আসছে না।

কারণ হিসেবে জানা যায়, তাদের যৌতুকের দাবি-দাওয়া না মেটায় ইচ্ছে করে দেরি করছিল বরপক্ষ। পরে অবশ্য রাতের দিকে কনের বাড়ি পৌঁছায় বর, কিন্তু ততক্ষণে কপাল পুড়েছে তার। বরের জন্য অপেক্ষা করতে করতে বিরক্ত হয়ে পাত্রী অন্য কাউকে বরমালা দিয়ে ফেলেছেন।

কনেপক্ষের দাবি, বিকেল পর্যন্ত বরের জন্য অপেক্ষা করেছিল তারা। কিন্তু ততক্ষণে বর না আসায়, ধরে নেয়া হয় পাত্রপক্ষ আর আসবে না। তারপরই পাশের বাড়ির এক ছেলের সাথে ওই মেয়ের বিয়ে দিয়ে দেয়া হয়।

পাত্রপক্ষের অভিযোগ, তাদেরকে শুধু অপমান করা হয়েছে তা নয়। উল্টো বিয়ে করতে গেলে বরসহ বরযাত্রীকে ঘরে আটকে রেখে মারধর করেছে কনেপক্ষের লোকজন। এমনকি কনের জন্য আনা গয়নাও কেড়ে নেয়া হয়েছে। পরে পুলিশ এসে দুই পক্ষের বিবাদ মীমাংসা করে।

এমএসএইচ