খেলাধুলা

ভারতের বাইরেই আইপিএল, ইঙ্গিত বিসিসিআই কর্তার

আইপিএল কি এবার হবে? সেটিই এখনও নিশ্চিত নয়। আইসিসি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ নিয়ে চূড়ান্ত কোনও সিদ্ধান্ত এখনও নিতে পারেনি। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ নিয়ে সিদ্ধান্ত না হওয়ায় ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডও (বিসিসিআই) আইপিএল নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে পারছে না।

তবে আলোচনা চলছে নানা ধরনের। এবার আইপিএল আয়োজন হলে সেটা দেশের এক ভেন্যুতে হবে, এমন কথাও শোনা যাচ্ছে। কলকাতা, জয়পুর, দিল্লি, বেঙ্গালুরু, চেন্নাইসহ বাকি সাত দলের ঘরের মাঠ বলে আর আলাদা করে কিছু থাকবে না। সবগুলো দল মুম্বাইতেই থাকবে এবং খেলবে। যেহেতু মাঠে দর্শক প্রবেশের অনুমতি থাকবে না, সে কারণে হোমভেন্যুর আর কোনো সুবিধাও থাকবে না ফ্রাঞ্চাইজিগুলোর।

আইপিএলের অন্যতম বড়মাপের শেয়ারহোল্ডারের পক্ষ থেকে নাকি এমন প্রস্তাবই দেওয়া হয়েছে বিসিসিআইকে। এক্ষেত্রে কী লাভ হবে? যুক্তি হিসেবে বলা হচ্ছে, একটি শহরেই আইপিএল হলে করোনা প্রবাহের মধ্যে বারবার প্রতিটি দলকে একাধিক শহরে সফর করতে হবে না। এতে সংক্রমণ থেকে বাঁচা যাবে। সে সঙ্গে মুম্বাইয়ে একাধিক স্টেডিয়াম থাকায় ঘুরে-ফিরে ম্যাচ আয়োজনেও সমস্যা হবে না।

আসলেই কি এমন করে এক ভেন্যুতে আইপিএলের মতো বড় টুর্নামেন্ট আয়োজন সম্ভব? করোনা পরিস্থিতির উন্নতি না হওয়ায় ভারতে একটা বা দুটো ভেন্যুতে টুর্নামেন্ট করা কঠিন। সেই কারণেই বিদেশে আইপিএল চলে যাওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিচ্ছে। বিসিসিআইয়ের একজন কর্তা জানালেন, করোনার কারণে এবার ভারতে না হওয়ার জোর সম্ভাবনা রয়েছে মেগা টুর্নামেন্টটির।

সেক্ষেত্রে বিকল্প ভেন্যু হতে পারে সংযুক্ত আরব আমিরাত অথবা শ্রীলঙ্কা। কেননা বোর্ডের কর্তারা ও ফ্র্যাঞ্চাইজি মালিকরা আইপিএল আয়োজনে আগ্রহী। যদি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ না হয়, তবে সেই সময় আইপিএল করতে চান বোর্ডকর্তারা। সেটা দেশের বাইরে হলেও।

বিসিসিআইয়ের ওই কর্তা বলেন, ‘আমরা এখনও ভেন্যুর ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেইনি। তবে এ বছর বাইরে হওয়ার জোর সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। ভারতের যে অবস্থা, তাতে একটি বা দুটি ভেন্যুতে অনেকগুলো দল নিয়ে খেলা কঠিন।’

তিনি যোগ করেন, ‘সেক্ষেত্রে আরব আমিরাত এবং শ্রীলঙ্কার মধ্যে যে কোনো এক দেশে হতে পারে। করোনার পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে আমরা বিবেচনা করব, কোন জায়গায় লিগটা আয়োজন করা সম্ভব। খুব দ্রুতই আমরা সিদ্ধান্ত নেব।’

এমএমআর/জেআইএম