খেলাধুলা

দশ মিনিটের ঝড়ে শেষ চারে ইন্টার

উয়েফা ইউরোপা লিগের প্রথম কোয়ার্টার ফাইনাল ম্যাচটিকে ভাগ করা দুই ভাগে। একটি হলো ১৫ থেকে ২৫- এই দশ মিনিট, আর অন্যটি বাকি আশি মিনিট। ম্যাচের ১৫ থেকে ২৫ মিনিটে আসা গোলের ঝড়েই সেমির টিকিট পেয়ে গেছে ইতালিয়ান ক্লাব ইন্টার মিলান। শেষ আটেই যাত্রা থেমে গেছে জার্মান দল বেয়ার লেবারকুসেনের।

Advertisement

জার্মানির এস্প্রিত এরেনায় ইউরোপা লিগের প্রথম কোয়ার্টার ফাইনালে মুখোমুখি হয়েছিল ইন্টার মিলান ও বেয়ার লেবারকুসেন। রোমেল লুকাকুর রেকর্ড ও নিকোলো বারেলার দর্শনীয় এক গোলে ২-১ গোলে জয় পেয়েছে ইন্টার। লেবারকুসেনের পক্ষে এক গোল শোধ করেছেন কাই হ্যাভার্টজ।

পুরো ম্যাচে বল দখলের লড়াইয়ে ইন্টারের চেয়ে ঢের এগিয়ে ছিল লেবারকুসেন। কিন্তু ইতালিয়ান ক্লাবটির মতো এতো আক্রমণ তারা করতে পারেনি। ইন্টার যেখানে অন্তত ১৮ বার আক্রমণ সাজিয়েছে, সেখানে লেবারকুসেন প্রতিপক্ষ রক্ষণে হানা দিতে পেরেছে মাত্র ৯ বার।

ম্যাচের ১৫ মিনিটের মাথায় নিকোলো বারেলা এনে দেন প্রথম গোল। নিজেদের রক্ষণে বল নিয়ে তালগোল পাকিয়ে ফেলেছিল লেবারকুসেন। সুযোগ বুঝে লুকাকুকে পাস বাড়িয়ে দেন অ্যাশলে ইয়ং। লুকাকুর শট প্রতিহত হয় রক্ষণভাগে। ফিরতি বল পেয়ে ডিবক্সের বাইরে থেকেই দর্শনীয় এক শটে গোলের খাতা খোলেন বারেলা।

Advertisement

এর মিনিট ছয়েক পর স্কোরশিটে নাম তোলেন বেলজিয়ান তারকা লুকাকু। এবারও বলের জোগান দেন ইয়ং। লেবারকুসেন ডিফেন্ডার এডমন্ড তাপসোবা চেষ্টা করেছিলেন লুকাকুকে থামাতে। কিন্তু পারেননি চতুর লুকাকুর সঙ্গে, বাম পায়ের বুদ্ধিদীপ্ত শটে ম্যাচের দ্বিতীয় গোল করেন লুকাকু।

ইউরোপা লিগে এটি লুকাকুর টানা নবম ম্যাচে গোলের রেকর্ড। টুর্নামেন্টের ইতিহাসে আর কেউ টানা ৯ ম্যাচে গোল করতে পারেননি। তিনি ভেঙেছেন ১৫ বছর আগে অ্যালেন শিয়েরার করা টানা ৮ ম্যাচে গোলের রেকর্ড। এই ৯ ম্যাচে ১২টি গোল করেছেন লুকাকু।

দুই গোলে পিছিয়ে গেলেও আশা হারায়নি লেবারকুসেন। উল্টো ম্যাচের ২৪ মিনিটেই এক গোল শোধ করে দেন হ্যাভার্টজ। যা খানিক আশা জাগায় তাদের মনে। কিন্তু ম্যাচের বাকি ৭৫ মিনিটে ব্যবধান বাড়াতে পারেনি ইন্টার, কমাতেও পারেনি লেবারকুসেন। ফলে ২-১ গোলেই শেষ হয়েছে ম্যাচ।

দিনের অন্য ম্যাচে কোপেনহেগেনকে ১-০ গোলে হারিয়ে সেমির টিকিট নিশ্চিত করেছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। তবে শেষ চারে মুখোমুখি হবে ইন্টার ও ম্যান ইউ। ইন্টারের প্রতিপক্ষ হবে শাখতার দোনেৎস্ক-বাসেল ম্যাচের জয়ী দল এবং ম্যান ইউ লড়বে সেভিয়া-ওলভস ম্যাচের জয়ীদের বিপক্ষে।

Advertisement

এসএএস/জেআইএম