খেলাধুলা

১৫ বছরের সোনালি ক্যারিয়ারের এমন সমাপ্তি!

মহেন্দ্র সিং ধোনি, ক্রিকেট ক্যারিয়ারে তার অপ্রাপ্তি বলতে কিছু ছিল না। ভারতের অন্যতম সফল অধিনায়ক। অধিনায়কত্বের পরিসংখ্যান আর সাফল্যের হিসেব কষলে দেশের সর্বকালের সেরা।

Advertisement

শুধু দেশের কথা বলা কেন? ইতিহাসের একমাত্র অধিনায়ক হিসেবে তিনটি আইসিসি ট্রফি জেতার অনন্য কীর্তি আছে ধোনির। ২০০৭ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ দিয়ে শুরু, তারপর ২০১১ সালে সবচেয়ে আরাধ্য ওয়ানডে বিশ্বকাপ। দুই বছর পর (২০১৩) ভারত চ্যাম্পিয়নস ট্রফিও জেতে ধোনির অধীনে। শোকেসে আছে দুটি এশিয়া কাপও (২০১০ আর ২০১৬)।

এতো গেল দলের ট্রফির হিসেব। ধোনির অধীনে ভারতের এত এত সাফল্য এসেছে, সেগুলো বিস্তারিত লিখতে গেলেও মহাকাব্য হয়ে যাবে। শুধু ভারতেরই নয়, তিন তিনবার (২০০৯, ২০১০ এবং ২০১৩) আইসিসির বিশ্ব টেস্ট একাদশেরও নেতৃত্ব দিয়েছেন এমএস। আইসিসির বিশ্ব ওয়ানডে একাদশে রেকর্ড ৮ বার সুযোগ পাওয়া খেলোয়াড় ধোনি, এর মধ্যে আবার পাঁচবার ছিলেন অধিনায়ক।

২০০৪ সালের ডিসেম্বরে বাংলাদেশের বিপক্ষে ওয়ানডে অভিষেক দিয়ে ক্যারিয়ার শুরু। এক বছর পর শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট অভিষেক। টি-টোয়েন্টি যাত্রা শুরু তারও ঠিক এক বছর পর, দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে।

Advertisement

তিন ফরমেটের মধ্যে ধোনি সবচেয়ে সফল ছিলেন ওয়ানডেতে। পঞ্চাশের ওপর গড়। ১০ হাজারের ওপর রান (১০৭৭৭)। ৩৫০ ওয়ানডেতে ১০টি সেঞ্চুরির সঙ্গে ৭৩টি হাফসেঞ্চুরির মালিক তিনি। ইতিহাসের সর্বকালের সেরা ফিনিশার হিসেবে পরিচিতিটা হয়ে গেছে তাতেই। উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান হিসেবে অন্যতম সফলদের একজন।

দেশের হয়ে ১০০ টেস্ট খেলা হয়নি ধোনির। তবে ৯০ টেস্টে পরিসংখ্যান মন্দ ছিল না। এই ফরমেটে ৬ সেঞ্চুরি ও ৩৩ হাফসেঞ্চুরিতে ৩৮.০৯ গড়ে ৪৮৭৬ রান ধোনির। সর্বোচ্চ ২২৪।

সেঞ্চুরি ছোঁয়ার সুযোগ ছিল টি-টোয়েন্টিতেও। তবে ৯৮ ম্যাচেই থামলো ক্যারিয়ার। এই ফরমেটেও ওয়ানডের মতো ঈর্ষণীয় সাফল্য। ৩৭.৬০ গড়ে ১৬১৭ রান সদ্য সাবেক উইকেটরক্ষক এই ব্যাটসম্যানের।

টেস্টে ভারতকে সবচেয়ে বেশি ম্যাচে (৬০) নেতৃত্ব দেয়া অধিনায়ক ধোনি। তার অধীনে ভারত জিতেছে ২৭টি টেস্ট, হেরেছে ১৮টি, ড্র ১৫। বিরাট কোহলি নেতৃত্বে আসার আগে ভারতকে সবচেয়ে বেশি টেস্ট জয় এনে দেয়া অধিনায়ক ছিলেন ধোনিই। ৩৩ জয় নিয়ে এখন কোহলি ওপরে উঠে গেছেন।

Advertisement

তবে ওয়ানডে আর টি-টোয়েন্টিতে ভারতকে সবচেয়ে বেশি জয় এনে দেয়ার রেকর্ডে ধোনির ধারেকাছে নেই ভারতের কোনো অধিনায়ক। ২০০ ওয়ানডেতে নেতৃত্ব দিয়ে ভারতকে ১১০টিতেই জিতিয়েছেন তিনি। টি-টোয়েন্টিতে ৭২ ম্যাচে জয় ৪১টি।

এমন হাজারও সাফল্যের এই কারিগর বিদায় নিলেন অনেকটাই নীরবে-নিভৃতে। গত ওয়ানডে বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে ভারত ছিটকে পড়ার পর থেকে (২০১৯ সালের জুলাইয়ে) দলের বাইরে আছেন ধোনি। ‌‘ফিরবেন-ফিরবেন’ শোনা গেলেও আর ফেরা হয়নি।

এক বছরেরও বেশি সময় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের বাইরে থাকার পর আইপিএল দিয়ে ফেরার কথা ধোনির। আর আইপিএলে পারফর্ম করতে পারলে জাতীয় দলের দরজা খুলতেও পারে, এমন একটা সমীকরণ ছিল। এরই মধ্যে হঠাৎ বিদায় বলে দিলেন সাবেক ক্যাপ্টেন কুল।

তার মতো কিংবদন্তি একজনের জন্য ৩৯-এ দাঁড়িয়ে দলে জায়গা পেতে পারফর্ম করতে হবে, কথাটাই তো কেমন! সেই অপেক্ষা আর করলেন না। ১৫ বছরের সোনালি ক্যারিয়ারকে বিদায় বলে দিলেন এক ঝটকায়।

এমএমআর/জেআইএম