জাতীয়

রাঙ্গুনিয়ার সেই বৌদ্ধ ভান্তের বিরুদ্ধে এবার আইসিটি আইনে মামলা

রাঙ্গুনিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা এরশাদ মাহমুদসহ সরকারের বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থা ও দায়িত্বশীল ব্যক্তিদের নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নানা বিভ্রান্তিমূলক ভিডিও বার্তা প্রচারের অভিযোগে বিতর্কিত বৌদ্ধভিক্ষু শরণাঙ্কর থেরের বিরুদ্ধে আইসিটি আইনে দুটি মামলা হয়েছে।

Advertisement

বৃহস্পতিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) রাতে টিটু বড়ুয়া নামের ক্ষুদ্ধ এক ব্যক্তি রাঙ্গুনিয়া থানায় একটি মামলা করেন। এর আগে বুধবার ইসলাম ধর্ম নিয়ে কটূক্তি ও অবমাননার অভিযোগে মাওলানা হাকিম উদ্দিন নামের এক ব্যক্তি আরও একটি মামলাটি দায়ের করেন।

রাঙ্গুনিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাইফুল ইসলাম আইসিটি অ্যাক্ট ও দণ্ডবিধির বিভিন্ন ধারায় মামলা দুটি রুজু করা হয়েছে বলে সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

টিটু বড়ুয়ার দায়ের মামলার অভিযোগে বলা হয়, মুক্তিযোদ্ধের চেতনাবিরোধী কার্যক্রম তথা সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করতে বিভিন্ন প্রচার ও প্রপাগান্ডা চালিয়ে যাচ্ছেন রাঙ্গুনিয়ার ফলাহারিয়া জ্ঞানশরণ মহারণ্য বৌদ্ধবিহারের ভিক্ষু শরণাঙ্কর থের। তিনি সর্বশেষ ২৪ মিনিটের ভিডিওতে আওয়ামী লীগ নেতা এরশাদ মাহমুদসহ গোয়েন্দা সংস্থা, পুলিশের শীর্ষ কর্মকর্তা, বনবিভাগ ও বিদ্যুৎ বিভাগের কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন ব্যক্তি সম্পর্কে মানহানিকর তথ্যপ্রচার ও প্রকাশ করে এলাকায় সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করে দাঙ্গা সৃষ্টির অপচেষ্টা চালাচ্ছেন।

Advertisement

টিটু বড়ুয়া বলেন, শরণাঙ্কর থের ইতোমধ্যে শতাধিক একর বনের জায়গা দখল করেছেন। তার দখলের উন্মত্ততা থেকে বাদ যায়নি হিন্দুদের একযুগের পুরোনো শ্মশান খোলা। শ্মশান থেকে ১২টি শবঘর উপড়ে ফেলে দিয়েছে।

এদিকে উপজেলার পদুয়া ইউনিয়নের ফলাহারিয়া গ্রামের সনাতনী হিন্দু সম্প্রদায়ের দীর্ঘদিনের পুরাতন শ্মশান দখল ও ভাঙচুরের প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে উপজেলা কেন্দ্রীয় পূজা উদযাপন পরিষদ।

বৃহস্পতিবার বিকেলে উপজেলা সদর ইছাখালীতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশে অনুষ্ঠিত হয়। এতে হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজন ও পূজা উদযাপন পরিষদের নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

উপজেলা কেন্দ্রীয় পূজা উদযাপন পরিষদের সিনিয়র সহ-সভাপতি শৈবাল চক্রবর্তীর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন সাধারণ সম্পাদক সুপায়ন সুশীল, সমীর চক্রবর্তী, টিবলু নাথ, অনুজিৎ দে, শিবু চক্রবর্তী, প্রিয়তোষ কান্তি দে, সুবেল দেব, মানিক কান্তি দাশ, হৃদয় দাশ, পরিমল দাশ, শিপন সাহা, সুমন দে, অভিদাশ, সুকান্ত দাশ, রামপ্রদ দাশ, পুলক দত্ত, বিজয় নন্দী, রুবেল দত্ত, শয়ন দত্ত, উষ্ণা দাশ, সমীরণ দত্ত, সমীর মহাজন, নয়ন মহাজন, উজ্জ্বল দে, রুবেল দে, রাজু দে প্রমুখ।

Advertisement

বক্তারা বলেন, পদুয়া ইউনিয়নের ফলাহারিয়ায় বিতর্কিত বৌদ্ধভিক্ষু শরণাঙ্কর থেরের ইন্ধনে হিন্দু সম্প্রদায়ের একমাত্র শ্মশান দখল ও ভাঙচুর করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের হলেও এখনও গ্রেফতার হননি অভিযুক্তরা বরং ফলাহারিয়ায় এখনও হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজনকে ক্রমাগত হুমকি-ধমকি দেয়া হচ্ছে।

মানববন্ধন থেকে শ্মশান দখল ও ভাঙচুরে জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবি জানানো হয়। এছাড়া এ ঘটনার ইন্ধনদাতা শরণাঙ্কর ভান্তেকে রাঙ্গুনিয়ায় অবাঞ্চিত ঘোষণা করে তাকেও দ্রুত আইনের আওতায় আনার দাবি করা হয়। অন্যথায় আরও বৃহৎ আন্দোলনের হুঁশিয়ারি দেন বক্তারা।

এর আগে প্রতিবাদী হিন্দু সমাজের আয়োজনে একই দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হলে ঘটনাস্থল পরিদর্শনে আসেন চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি আনোয়ার হোসেনসহ পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

আবু আজাদ/বিএ