জাতীয়

করোনায় মৃতের ৭৯ শতাংশ পঞ্চাশোর্ধ্ব

করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় সারাদেশে আরও ২৪ জন মারা গেছেন। তাদের মধ্যে পুরুষ ২০ ও নারী ৪ জন। এ নিয়ে ভাইরাসটিতে মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৬ হাজার ৭৭২ জনে। তাদের মধ্যে পুরুষ পাঁচ হাজার ১৮৪ (৭৬ দশমিক ৫৫ শতাংশ) ও নারী এক হাজার ৫৮৮ জন (২৩ দশমিক শূন্য ৪৫ শতাংশ)।

Advertisement

দেশে করোনাভাইরাসে সংক্রমিত প্রথম রোগী শনাক্ত হয় গত ৮ মার্চ। এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রথম মৃত্যুর ঘটনা ঘটে ১৮ মার্চ।

পরিসংখ্যান বিশ্লেষণে দেখা গেছে, করোনায় মৃত্যুবরণকারী ছয় হাজার ৭৭২ জনের বয়স বিবেচনায় ৭৯ দশমিক ২৮ শতাংশের বেশি পঞ্চাশোর্ধ্ব। এছাড়া শূন্য থেকে ১০ বছর বয়সী ৩৩ জন (শূন্য দশমিক ৪৯ শতাংশ), ১১ থেকে ২০ বছর বয়সী ৫৫ জন (শূন্য দশমিক ৮১ শতাংশ), ২১ থেকে ৩০ বছর বয়সী ১৫২ জন (দুই দশমিক ২৪ শতাংশ), ৩১ থেকে ৪০ বছর বয়সী ৩৪৯ জন (৫ দশমিক ১৫ শতাংশ), ৪১ থেকে ৫০ বছর বয়সি ৮১৪ জন (১২ দশমিক ০২ শতাংশ), ৫১ থেকে ৬০ বছর বয়সী এক হাজার ১৫৪ জন (২৫ দশমিক ৯০ শতাংশ) এবং ৬০ বছরের বেশি বয়সী তিন হাজার ৬১৫ জন (৫৩ দশমিক ৩৮ শতাংশ)।

গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যুবরণকারী ২৪ জনের মধ্যে বিশোর্ধ্ব একজন, ত্রিশোর্ধ্ব দুইজন, চল্লিশোর্ধ্ব দুইজন, পঞ্চাশোর্ধ্ব দুইজন এবং ষাটোর্ধ্ব ১৭ জন।

Advertisement

শুক্রবার (৪ ডিসেম্বর) বিকেলে স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় ১১৮টি ল্যাবরেটরিতে ১৫ হাজার ৫২৭টি নমুনা সংগ্রহ ও ১৫ হাজার ৪৩০টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এ নিয়ে মোট নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা দাঁড়াল ২৮ লাখ ৩৬ হাজার ৪৪১টি। এ সময়ে করোনা আক্রান্ত নতুন রোগী শনাক্ত হন আরও দুই হাজার ২৫২ জন। দেশে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়াল ৪ লাখ ৭৩ হাজার ৯৯১ জনে।

রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ও বাড়িতে উপসর্গবিহীন রোগীসহ গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ২ হাজার ৫৭২ জন। এ পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়েছেন ৩ লাখ ৯০ হাজার ৯৫১ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষার তুলনায় শনাক্তের হার ১৪ দশমিক শূন্য ৫৯ শতাংশ। এ পর্যন্ত মোট নমুনা পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ১৬ দশমিক ৭১ শতাংশ, শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৮২ দশমিক ৪৮ এবং শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুর হার এক দশমিক ৪৩ শতাংশ।

Advertisement

এমইউ/জেএইচ/জেআইএম