অর্থনীতি

কর্মীদের কল্যাণে নতুন দুটি নীতি বাস্তবায়ন করল ইউনিলিভার

দেশের অন্যতম বৃহত্তম নিত্যব্যবহার্য পণ্য উৎপাদনকারী কোম্পানি-ইউনিলিভার বাংলাদেশ লিমিটেড (ইউবিএল) তার কর্মীদের কল্যাণার্থে নতুন দু’টি বিশেষ ও অগ্রগামী নীতি বাস্তবায়ন করেছে।

Advertisement

নতুন এই নীতি দু’টি হলো- অসুস্থতাকালীন সময় কর্মী এবং তার পরিবারের সদস্যদের জন্য বাড়িতেই স্বাস্থ্য পরিচর্যাসেবা (কেয়ারগিভার সার্ভিস) গ্রহণের সুযোগ এবং বার্ষিক ছুটির সাথে পরিবর্তনযোগ্য সরকারি ছুটি এক অপরের সাথে সমন্বয় করার সুযোগ প্রদান। উদ্যোগটি ইউনিলিভারের বৈচিত্র্যময় ও অন্তর্ভুক্তিমূলক কর্মক্ষেত্র তৈরির দর্শনের সাথে সম্পৃক্ত, যেখানে প্রতিটি কর্মীর মর্যাদা ও প্রয়োজনীয়তাকে সম্মান দেয়া হয়, যাতে তারা কাজের ক্ষেত্রে দক্ষতার সর্বোচ্চ বহিঃপ্রকাশ ঘটাতে পারেন।

এ বছর ইউনিলিভার আরো দুটি অগ্রগামী ও লিঙ্গ-নিরপেক্ষ নীতি গ্রহণ করেছে। সেগুলো হলো- ‘প্রিভেনশন অন সেক্সুয়াল হ্যারেসমেন্ট’ এবং ‘সাপোর্ট সারভাইভার্স অব এবইউজ’। অন্তর্ভুক্তিমূলক কাজের পরিবেশ বজায় রাখা এবং কর্মীদের যেকোনো ব্যক্তি বা দলগত হয়রানি থেকে রক্ষা করতে এই নীতিগুলো বাস্তবায়ন করা হয়।

কর্মীবান্ধব প্রতিষ্ঠান হিসেবে ইউনিলিভার অনুধাবন করেছে যে, অতিমারিরকালে এই মানবিক সংকটময় পরিস্থিতি, সমাজে একটি অসম বাস্তবতা তৈরি করতে পারে। তাই কর্মীদের শুধু শারীরিক সুস্থতা নিশ্চিত করা নয়, বরং মানসিক ও অনুভূতির সুরক্ষা নিশ্চিত করাও এখন গুরুত্বপূর্ণ।

Advertisement

ইউনিলিভারের ‘কেয়ারগিভার সার্ভিস পলিসি’ অনুসারে, কর্মীরা তাদের পরিবারের সন্তান, বয়োজ্যেষ্ঠ কিংবা অসুস্থ সদস্যদের যত্নের জন্য স্বল্প খরচে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান থেকে দক্ষ ও প্রশিক্ষিত পরিচর্যাকারী রাখতে পারবেন। এই উদ্যোগের লক্ষ্য হলো- জরুরি প্রয়োজনে ইউনিলিভারের কর্মীদেরকে সর্বাত্মকভাবে সাহায্য করা, যাতে কর্মক্ষেত্র এবং বাসায় তারা তাদের কাজে পারদর্শিতা প্রদর্শনের সুযোগ পান।

যেসব কর্মী ও তাদের পরিবারের সদস্যরা স্বাস্থ্য সমস্যায় ভুগছেন, প্রশিক্ষিত পরিচর্যাকারী ও সরকার স্বীকৃত সেবিকারা তাদের সেবা প্রদান করবেন। এই উদ্যোগের মাধ্যমে ইউনিলিভারের কর্মীরা বাসায় কিংবা হাসপাতালে কোভিড-১৯ রোগীর যত্ন, নার্সিং হোমকেয়ার সেবা, ফিজিওথেরাপি, মানসিক পরিচর্যা সহ আয়া সেবার সুবিধা গ্রহণ করতে পারবেন।

ইউনিলিভার বাংলাদেশে গৃহীত নতুন দুই নীতির দ্বিতীয়টি বাস্তবায়নের ফলে সরকারি ছুটি সমন্বয়ের সুযোগ তৈরি হলো।

আইএইচআর/জেএইচ/এএসএম

Advertisement