অর্থনীতি

‌এসবিএসিবি’র আইপিওতে প্রায় ১৪ গুণ আবেদন, শেয়ার বরাদ্দ বৃহস্পতিবার

সাউথ বাংলা এগ্রিকালচার অ্যান্ড কমার্স ব্যাংক লিমিটেডের প্রাথমিক গণ প্রস্তাবের (আইপিও) আবেদনে ব্যাপক সাড়া পড়েছে। কোম্পানিটির চাহিদার তুলনায় প্রায় ১৪ গুণ আবেদন জমা পড়েছে। এর আগে গত ৫ জুলাই থেকে ১২ জুলাই পর্যন্ত ব্যাংকিং কর্মদিবসে বিনিয়োগকারীরা এ আবেদন করেছেন। বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) দুপুর ১২টায় রাজধানীর নিকুঞ্জে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ টাওয়ারে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে আনুপাতিক হারে শেয়ার বরাদ্দ দেয়া হবে।

Advertisement

ডিএসই সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে। সূত্র জানায়, আইপিওতে ব্যাংকটি অভিহিত মূল্য তথা ১০ টাকা দামে ১০ কোটি সাধারণ শেয়ার ইস্যু করবে। আর এর মাধ্যমে পুঁজিবাজার থেকে ১০০ কোটি টাকা সংগ্রহ করবে ব্যাংকটি। এর বিপরীতে এক হাজার ৩৯১ কোটি ৪৪ লাখ ৮৬ হাজার টাকার আবেদন জমা পড়েছে। সে হিসাবে চাহিদার ১৩ দশমিক ৯১ গুণ আবেদন জমা পড়ে। পুঁজিবাজার থেকে ব্যাংকটি অর্থ উত্তোলন করে সরকারি সিকিউরিটিজ ক্রয় এবং আইপিও খরচ খাতে ব্যয় করবে।

এ প্রসঙ্গে এসবিএসি ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী মোসলেহ উদ্দীন আহমেদ বলেন, ‘সর্বপ্রথম আমি বিনিয়োগকারীদের ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাই। এই করোনাকালীন কঠোর লকডাউনের মধ্যে তারা অভূতপূর্ব সাড়া দিয়েছেন। তারা আমাদের ব্যাংকের প্রতি যে আস্থা দেখিয়েছেন তাতে আমাদের ভবিষ্যৎ কর্মপরিকল্পনা ও দায়িত্বপালনে জবাবদিহিতা আরও বেড়ে গেছে। আমাদের ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদ ও ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ এর যথাযথ প্রতিদান দিতে বদ্ধপরিকর।’ তিনি আরও বলেন, ‘একটি দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে যে শিল্পায়ন গড়ে ওঠে তাতে পুঁজিবাজারের মাধ্যমে দীর্ঘস্থায়ী বিনিয়োগ করা হয়ে থাকে। সরকারের বড় বড় প্রকল্পে পুঁজিবাজারের মাধ্যমে বিনিয়োগ করা সম্ভব। সুতরাং সাউথ বাংলা ব্যাংক পুঁজিবাজারের সার্বিক উন্নয়ন ভূমিকা পালন করবে ইনশাল্লাহ।’ সে জন্য তিনি সকলের সহযোগিতা প্রত্যাশা কামনা করেন। পাশাপাশি তিনি পুঁজিবাজারে আসার প্রক্রিয়ায় বাংলাদেশ ব্যাংক, বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন, ঢাকা ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ, ইস্যু ম্যানেজারসহ সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি বিশেষ কৃতজ্ঞতা জানান।

ব্যাংক সূত্রে জানা যায়, ২০১৩ সালের এপ্রিল মাসে বাণিজ্যিকভাবে যাত্রা শুরু করা সাউথ বাংলা এগ্রিকালচার অ্যান্ড কমার্স ব্যাংক গত ৯ মে আইপিওর অনুমোদন পায়। ওইদিন বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (এসইসি) তার ৭৭৩তম সভায় এ অনুমোদন দেয়। এর আগে দীর্ঘ ১২ বছর পর চতুর্থ প্রজন্মের ব্যাংক হিসেবে এনআরবি কমার্শিয়াল ব্যাংক পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়; ব্যাংকটির আইপিওতে আবেদন পড়েছিল ৮ দশমিক ৭২ গুণ।

Advertisement

সাউথ বাংলা এগ্রিকালচার অ্যান্ড কমার্স ব্যাংকের ২০২০ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর নিরীক্ষিত আর্থিক বিবরণী অনুযায়ী পুনঃমূল্যায়ন ছাড়া নেট অ্যাসেটভ্যালু দাঁড়িয়েছে ১৩ দশমিক ১৮ টাকা। আর ওই বছরের ৯ মাসে ইপিএস হয়েছে শূন্য দশমিক ৯৪ টাকা। যা বিগত ৫ বছরের ভারিত গড় হারে হয়েছে ১ দশমিক ২৪ টাকা। আইপিওতে ব্যাংকটির ইস্যু ম্যানেজার হিসেবে দায়িত্ব পালন করছে আইসিবি ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্ট লিমিটেড।

ডিএসই সূত্রে আরও জানা যায়, সাউথ বাংলা ব্যাংকের আইপিওতে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের আবেদন জমা পড়েছে ৬৬১ কোটি ২০ লাখ ৭০ হাজার টাকার; ক্ষতিগ্রস্ত বিনিয়োগকারীদের আবেদন জমা পড়েছে ১৩১ কোটি ৫ লাখ ৭০ হাজার টাকার; প্রবাসী বিনিয়োগকারীদের আবেদন জমা পড়েছে ৯১ কোটি ৭৯ লাখ ৮০ হাজার টাকার এবং প্রতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের আবেদন পড়েছে ৫০৭ কোটি ৩৮ লাখ ৬৬ হাজার টাকার।

এর আগে সাউথ বাংলা এগ্রিকালচার অ্যান্ড কমার্স ব্যাংক লিমিটেডের আইপিওতে যেসব ইলিজিবিল ইনভেস্টর আবেদন করেছে তাদের শেয়ার বরাদ্দের তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। ইলেকট্রনিক সাবস্ক্রিপশন সিস্টেমের মাধ্যমে আবেদন করা ৬৮২টি প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের মাধ্যমে এই শেয়ার বণ্টন করা হয়েছে। জানা যায়, যোগ্য বিনিয়োগকারীদের জন্য নির্ধারিত ৪ কোটি শেয়ারের বিপরীতে ৫০ কোটি ৭৩ লাখ ৮৬ হাজার ৬০০ শেয়ারের আবেদন পড়েছে। অর্থাৎ ৪০ কোটি টাকার বিপরীতে সাউথ বাংলার আইপিওতে যোগ্য বিনিয়োগকারীরা ৫০৭ কোটি ৩৮ লাখ ৬৬ হাজার টাকার আবেদন করেছে। এক্ষেত্রে চাহিদার ১২ দশমিক ৬৮ গুণ বেশি আবেদন জমা পড়েছে। আর প্রো-রাটা ব্যাসিসে আবেদন করা ৬৮২টি যোগ্য বিনিয়োগকারীর মধ্যে শেয়ার ভাগ করে দেয়া হয়েছে।

ইএআর/ইএ

Advertisement