জাতীয়

নীতিমালা-লাইসেন্সসহ চার দাবিতে রিকশা-ইজিবাইক চালকদের সমাবেশ

নীতিমালা প্রণয়ন করে রিকশা, ভ্যান, ইজিবাইকসহ ব্যাটারিচালিত যানবাহনের লাইসেন্স প্রদানসহ ৪ দাবিতে শ্রমিক সমাবেশ করেছে রিকশা, ব্যাটারিচালিত রিকশা-ভ্যান ও ইজিবাইক চালক সংগ্রাম পরিষদ।

Advertisement

শনিবার (২৫ সেপ্টেম্বর) বেলা ১১টায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এ সমাবেশের আয়োজন করেন তারা।

‘ব্যাটারিচালিত যানবাহন উচ্ছেদ নয়, আধুনিকায়ন কর’ স্লোগানে আয়োজিত সমাবেশে বক্তারা রিকশা আটক, ভেঙে দেওয়া, হয়রানি ও চাঁদাবাজি বন্ধ করার আহ্বান জানান।

শ্রমিক সমাবেশে বরিশাল সিটি করপোরেশনের মেয়রপ্রার্থী ডা. মণিষা চক্রবর্তী বলেন, ‘এরা খেটে খাওয়া মানুষ। তাদের পরিবার আছে। তাদের আয়ের ওপর নির্ভর করে পরিবারগুলো চলে। এই গরীব শ্রমজীবী মানুষগুলোকে বাঁচতে দিন। নীতিমালা করুন। যদি বন্ধ করে দেন, তবে সারাদেশ অচল করতে আমরা বাধ্য হবো।’

Advertisement

সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের নেতা ওসমান আলী বলেন, ‘বিকল্প ব্যবস্থা না করে একটা গাড়িও বন্ধ করা যাবে না। তাদের জন্য আলাদা লেন করুন। চাকরি দিতে পারেন না, আয় বন্ধ করেন কেন? নির্যাতন করে কেউ টিকে থাকতে পারে না। তাদের ৪ দফা দাবি মেনে নিন।’

জাতীয় শ্রমিক জোটের সভাপতি সাইফুজ্জামান বাদশা বলেন, ‘এই সংগ্রামে বিজয়ী না হওয়া পর্যন্ত সঙ্গে থাকব। আমরা আইন মানতে চাই। আইন মেনে রিকশা চালাতে চাই।’

রিকশা, ব্যাটারিচালিত রিকশা-ভ্যান ও ইজিবাইক চালক সংগ্রাম পরিষদের আহ্বায়ক খালেকুজ্জামানের সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব প্রকৌশলী ইমরান হাবীব রুমনের সঞ্চালনায় সামবেশে অন্যান্যদের মধ্যে আরও উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ কমিউনিস্ট পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য আব্দুল্লাহ-হেল-কাফী রতন, সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্টের সহ-সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক, খুলনার জনার্দন দত্ত নান্টুসহ প্রায় পাঁচ শতাধিক রিকশা, ব্যাটারি রিকশা-ভ্যান ও ইজিবাইক চালক।

আরএসএম/ইউএইচ/এএসএম

Advertisement