শিক্ষা

শিক্ষাব্যবস্থায় কোনো বিভাজন রাখেননি বঙ্গবন্ধু: আরেফিন সিদ্দিক

দেশের শিক্ষাব্যবস্থায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কোনো বিভাজন রাখেননি বলে জানিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি ও বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থার (বাসস) চেয়ারম্যান ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক।

Advertisement

সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) বিকেলে জাতীয় প্রেস ক্লাবে এক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন। শিক্ষক নেতা ও আওয়ামী লীগের সাবেক প্রেসিডিয়াম সদস্য অধ্যক্ষ মো. কামরুজ্জামানের ১৩তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে এ সভা ও দোয়া মাহফিল করা হয়।

আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক বলেন, বঙ্গবন্ধু প্রাথমিক শিক্ষাব্যবস্থাকে একধারায় পরিণত করলেন। কোনো ভিন্ন ধারা থাকবে না। ইংরেজি মাধ্যম, বাংলা মাধ্যম, মাদরাসা এই ধরনের শিক্ষার বিভাজন থাকবে না।

শিক্ষকদের প্রতি বঙ্গবন্ধুর চিন্তা ও মর্যাদার কথা উল্লেখ করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য বলেন, একটি স্বাধীন দেশ, যুদ্ধবিধ্বস্ত অর্থনীতি, দেশের রাষ্ট্রীয় কোষাগার শূন্য, সেই অবস্থায় বঙ্গবন্ধু প্রাথমিক শিক্ষাব্যবস্থাকে জাতীয়করণ করেছিলেন। প্রাথমিক শিক্ষকদের বেতন-ভাতা রাষ্ট্রীয় কোষাগারে ন্যস্ত করলেন।

Advertisement

আরেফিন সিদ্দিক আরও বলেন, বঙ্গবন্ধু সব শিশুর জন্য শিক্ষা বাধ্যতামূলক করেছেন। কেউ পড়বে কেউ বাসায় কাজ করবে এটা হবে না। ১৯৭২ সালেই এই চিন্তা করেছিলেন বঙ্গবন্ধু।

বর্তমানে শিশুদের শিক্ষার বিষয়ে তিনি বলেন, ছেলেমেয়েদের ভয় দেখিয়ে পড়ালেখা করা ও জিপিএ ৫ পাওয়ার শিক্ষা দেওয়া উচিত নয়।

দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে শিক্ষার গুরুত্ব উল্লেখ করে ঢাবির সাবেক উপাচার্য বলেন, ১৯৭৫ সালেও বাংলাদেশের মানুষের মাথাপিছু আয় ছিল ২৭২ মার্কিন ডলার। চীনের ছিল ১৮০ মার্কিন ডলার। আজ তাদের মাথাপিছু আয় ১০ হাজারেরও বেশি। এটার মূল কারণ শিক্ষা। তরুণ সমাজকে যদি সঠিক শিক্ষা না দেওয়া যায় তবে সেই উন্নতি সম্ভব নয়।

এসময় অধ্যক্ষ কামরুজ্জামানের বিষয়ে ড. আরেফিন সিদ্দিক বলেন, বঙ্গবন্ধু তাকে (কামরুজ্জামান) দুইবার ডেকে রাষ্ট্রদূত হতে বললেন, কিন্তু তিনি হতে চাননি। দেশ ছাড়তে চাননি। এমনকি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাকে মরক্কোর রাষ্ট্রদূত হওয়ার জন্য প্রজ্ঞাপনও জারি করলেন। কিন্তু তিনি গেলেন না।

Advertisement

এর আগে সভায় শ্রদ্ধাঞ্জলি পাঠ করেন অধ্যক্ষ কামরুজ্জামানের মেয়ে আওয়ামী লীগের সদস্য ও অনুষ্ঠানের সভাপতি পারভীন জামান কল্পনা।

আলোচনা সভায় অংশ নেন- আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও কৃষিমন্ত্রী ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক, যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিল, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট কাজী মোর্শেদ হোসেন কামাল প্রমুখ।

আরএসএম/জেডএইচ/এমএস