জাতীয়

টেকসই প্লাস্টিক ব্যবস্থাপনা পরিকল্পনা নিচ্ছে সরকার

প্লাস্টিক বর্জ্য মুক্ত বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে সরকার টেকসই প্লাস্টিক ব্যবস্থাপনা পরিকল্পনা (সাসটেইনেবল প্লাস্টিক ম্যানেজমেন্ট প্ল্যান) চূড়ান্ত করছে বলে জানিয়েছেন পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মোস্তফা কামাল।

Advertisement

তিনি বলেছেন, বর্তমানে বাস্তবায়নাধীন ‘থ্রি আর ’(রিডিউস, রিইউজ এবং রিসাইকেল) পলিসি সংশ্লিষ্ট সবার সহযোগিতায় কার্যকর করে প্লাস্টিক বর্জ্য মুক্ত বাংলাদেশ গড়তে সরকারের উদ্যোগ অব্যাহত থাকবে।

রোববার (১৭ অক্টোবর) বিকেলে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে আয়োজিত বিশ্বব্যাংকের প্রস্তুত করা “টুওয়ার্ড এ মাল্টিসেক্টরাল অ্যাকশন প্ল্যান ফর সাসটেইনেবল প্লাস্টিক ম্যানেজমেন্ট ইন বাংলাদেশ” শীর্ষক প্রতিবেদন পর্যালোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

সভায় এফবিসিসিআই সভাপতি জসিম উদ্দিন বিদেশ হতে প্লাস্টিক বর্জ্য আমদানি নিষিদ্ধ করার সুপারিশ করে বলেন, বিদেশ হতে প্লাস্টিক বর্জ্য আমদানি করলে দেশের প্লাস্টিক বর্জ্য পুনর্ব্যবহার, পুনর্চক্রায়ন এবং হ্রাস নীতি কার্যকর হবে না।

Advertisement

তিনি বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের অধীন বিশেষ প্রকল্পের মাধ্যমে উদ্ভাবিত সোনালী ব্যাগ বেসরকারি খাতের মাধ্যমে উৎপাদন করার জন্য সুপারিশ করেন। ব্যবসায়ীরা বিনিয়োগ করে এটিকে জনপ্রিয় করে তুলতে উদ্যোগী হবেন বলেও তিনি জানান।

সভায় জানানো হয়, বর্তমানে ৩৭ শতাংশ প্লাস্টিক বর্জ্য রিসাইকেল করা হয়। প্লাস্টিক অ্যাকশন প্লানে ২০২৫ সালের মধ্যে ৫০ শতাংশ এবং ২০৩০ সালের মধ্যে ৮০ শতাংশ প্লাস্টিক রিসাইকল করা, ২০৩০ সালে মধ্যে ৩০ শতাংশ প্লাস্টিক বর্জ্য উৎপাদন হ্রাস করা এবং ২০২৬ সালের মধ্যে ৯০ শতাংশ সিঙ্গেল ইউজ প্লাস্টিক পরিহার করার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে।

খসড়া অ্যাকশন প্ল্যানের ওপর উপস্থিত সদস্যদের সুপারিশগুলো গ্রহণ করে এটিকে চূড়ান্ত করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় সভায়।

এতে পরিবেশ দূষণ নিয়ন্ত্রণ অনুবিভাগের অতিরিক্ত সচিব মো. মনিরুজ্জামান ছাড়াও বিভিন্ন মন্ত্রণালয়, সিটি করপোরেশন, ওয়াসা, রাজউক, এফবিসিসিআই, প্লাস্টিক পণ্য প্রস্তুতকারক মালিক সমিতি এবং বিশ্বব্যাংকের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

Advertisement

এমইউ/এমকেআর