আইন-আদালত

কোম্পানির একীভূতকরণ স্কিম অনুমোদনে জনস্বার্থ বিবেচনা

কোম্পানি আইন নিয়ে আমাদের রয়েছে নানা জিজ্ঞাসা। একটি কোম্পানি গঠন করতে অবশ্যই অনুসরণ করতে হয় দেশের প্রচলিত আইন। কী সেসব আইন? এমন সব আইনি বিষয়ে সমাধান দেবেন অ্যাডভোকেট মো. নজরুল ইসলাম খান। আজ জেনে নেবো কোম্পানির একীভূতকরণ স্কিম অনুমোদনে জনস্বার্থ বিবেচনা সম্বন্ধে।

Advertisement

>>একাধিক কোম্পানির একীভূতকরণ (Amalgamation) প্রক্রিয়ায় একটি কোম্পানি (Transferor) স্থাবর ও অস্থাবর সমস্ত সম্পত্তি (Asset), দায় (Liability) একটি স্কিমের আওতায় অপর একটি কোম্পানির (Transferee) কাছে হস্তান্তর করে। অবলুপ্তির (Winding Up) প্রক্রিয়া ছাড়াই হস্তান্তরকারী কোম্পানির আইনগত সত্তার (Legal Entity) অবসান ঘটে। হস্তান্তরকারী কোম্পানির সদস্যরা হস্তান্তর গ্রহীতা কোম্পানিতে (সম্মতিক্রমে নির্ধারিত অনুপাতে) শেয়ার অর্জন করেন।

একীভূতকরণ স্কিম আদালতের অনুমোদন (Confirmation) সাপেক্ষে কার্যকর করা যায়। স্কিম অনুমোদন আদালতের সুবিবেচনার (Discretion) ওপর নির্ভর করে। কোম্পানি অধিকার হিসেবে অনুমোদন দাবি করতে পারে না। সাধারণ সভায় অনুমোদিত স্কিম শুধু কোম্পানির জন্য উপকারী (Beneficial) হলেই আদালত তা অনুমোদনে বাধ্য নন।

জনস্বার্থের পরিপন্থি যে কোনো স্কিম আদালত প্রত্যাখ্যান করতে পারেন। যেমন- একই পণ্য উৎপাদনকারী দু’টি পরস্পর প্রতিযোগী কোম্পানি একীভূত হলে বাজারে প্রতিযোগিতার পরিবেশ বিনষ্ট হতে পারে। সেক্ষেত্রে পণ্যমূল্য বৃদ্ধির পাশাপাশি পণ্যের মান নিয়ন্ত্রণ ঝুঁকিতে পড়তে পারে।

Advertisement

একীভূতকরণ প্রক্রিয়ায় একটি স্কিমের আওতায় হস্তান্তরকারী কোম্পানির সমস্ত সম্পত্তি হস্তান্তর গ্রহীতা কোম্পানিতে হস্তান্তরিত হয়। সাব-রেজিস্ট্রার কার্যালয়ে কোনো হস্তান্তর দলিল নিবন্ধন করতে হয় না। সম্পত্তি হস্তান্তরের ট্যাক্স এড়ানোর জন্য অনেকে একীভূতকরণ প্রক্রিয়ার আশ্রয় নিতে পারেন। ট্যাক্স এড়ানোর উদ্দেশ্যে প্রণীত যে কোনো স্কিম জনস্বার্থের পরিপন্থি হওয়ায় আদালত স্কিম প্রত্যাখ্যান করতে পারেন।

অর্থাৎ স্কিম অনুমোদনে জনস্বার্থ বিবেচনা সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। কোনো স্কিম কোম্পানি এবং এর সদস্যদের জন্য উপকারী হলেও তা জনস্বার্থের পরিপন্থি হলে আদালত স্কিম প্রত্যাখ্যান করতে পারেন।

মো. নজরুল ইসলাম খানঅ্যাডভোকেট, বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টই-মেইল: nikhan.law.ru@gmail.com

এএ/জেআইএম

Advertisement