দেশজুড়ে

প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে ৩ বছর আত্মগোপনে, পরিবার জানতো ‘মৃত’

লালমনিরহাটে নিখোঁজের তিন বছর পর শাহজাহান আলী (৪০) নামের এক অটোরিকশাচালককে জীবিত উদ্ধার করেছে পুলিশ। হত্যার পর প্রতিপক্ষরা তার মরদেহ গুম করে বলেই জানতো পরিবার। তবে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে তিনি এতদিন আত্মগোপনে ছিলেন বলে জানিয়েছে পুলিশ।

Advertisement

বৃহস্পতিবার (২৭ জানুয়ারি) দুপুরে লালমনিরহাট সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ আলম অটোচালক শাহজাহান আলীকে জীবিত উদ্ধারের বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

শাহজাহান আলী ওরফে নাহিদ জেলার কালীগঞ্জ উপজেলার কাকিনা ইউনিয়নের ঈশ্বরকুল এলাকার হবিবর রহমানের ছেলে।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ২০১৯ সালের ২৭ মার্চ সদর উপজেলার হাড়িভাঙ্গার শ্বশুরবাড়িতে রাতের খাবার খান শাহজাহান আলী। এরপর বাড়ির বাইরে বের হয়ে আর ফিরে আসেননি। অনেক খোজাঁখুজির পর স্বামীকে না পেয়ে ৮ এপ্রিল লালমনিরহাট সদর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন তার স্ত্রী মতিয়া বেগম (৩২)।

Advertisement

নিখোঁজ হওয়ার কয়েকদিন পর গ্রামের বাড়ির পাশ থেকে শাহজাহানের রক্তমাখা লুঙ্গি ও জামা উদ্ধার করা হয়। উদ্ধার হওয়া জামা ও লুঙ্গি স্বামী শাহজাহানের বলে শনাক্ত করেন স্ত্রী মতিয়া বেগম। পরিবারটির ধারণা ছিল, জমি-সংক্রান্ত বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষ তাকে খুন করে মরদেহ গুম করেছে।

এ ঘটনার দীর্ঘ তিন বছর পর বুধবার (২৬ জানুয়ারি) রাতে জেলার প্রাণকেন্দ্র মিশন মোড় চত্বর থেকে শাহজাহান আলীকে জীবিত উদ্ধার করে সদর থানা পুলিশ। প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে তিনি এতদিন আত্মগোপনে ছিলেন বলে পুলিশের কাছে স্বীকার করেছেন শাহজাহান আলী

লালমনিরহাট সদর থানার ওসি শাহ আলম বলেন, আজ দুপুরে তাকে ৫৪ ধারায় গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

রবিউল হাসান/এসআর/জেআইএম

Advertisement