ফিচার

বঙ্কিমচন্দ্রের জন্ম ও জাহানারা ইমামের প্রয়াণ

মানুষ ইতিহাস আশ্রিত। অতীত হাতড়েই মানুষ এগোয় ভবিষ্যৎ পানে। ইতিহাস আমাদের আধেয়। জীবনের পথপরিক্রমার অর্জন-বিসর্জন, জয়-পরাজয়, আবিষ্কার-উদ্ভাবন, রাজনীতি-অর্থনীতি-সমাজনীতি একসময় রূপ নেয় ইতিহাসে। সেই ইতিহাসের উল্লেখযোগ্য ঘটনা স্মরণ করাতেই জাগো নিউজের বিশেষ আয়োজন আজকের এই দিনে।

Advertisement

২৬ জুন ২০২২, রোববার। ১২ আষাঢ় ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ঘটনা১৯৭৪- প্রথমবারের মতো বারকোড ব্যবহার করে কোনো খুচরা পণ্য বিক্রি হয়। পণ্যটি ছিল চিবানোর গাম।১৯৭৯- কিংবদন্তি মুষ্ঠীযোদ্ধা মোহাম্মাদ আলী অবসর গ্রহণ করেন।১৯৯১- রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের প্রায় ৪০০ পৃষ্ঠার পাণ্ডুলিপি লন্ডনে নিলামে উঠলে ভারত সরকার ২৬ হাজার ৬০০ পাউন্ড দামে কিনে নেয়।১৯৯২- বাংলাদেশের কাছে ভারতের ৩ বিঘা করিডর হস্তান্তর।২০০০- বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক ক্রিকেট সংস্থার স্থায়ী সদস্যপদ লাভ করে। জন্ম১৮৩৮- উনিশ শতকের বাঙালি সাহিত্যিক ও সাংবাদিক সাহিত্যসম্রাট বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়। বাংলা গদ্য ও উপন্যাসের বিকাশে তার অসীম অবদানের জন্য তিনি বাংলা সাহিত্যের ইতিহাসে অমরত্ব লাভ করেছেন। তাকে সাধারণত প্রথম আধুনিক বাংলা ঔপন্যাসিক হিসেবে গণ্য করা হয়। তবে গীতার ব্যাখ্যাদাতা ও সাহিত্য সমালোচক হিসেবেও তিনি বিশেষ খ্যাতিমান। তিনি জীবিকাসূত্রে ব্রিটিশ রাজের কর্মকর্তা ছিলেন। তার জন্ম বর্তমান উত্তর ২৪ পরগনা জেলার নৈহাটি শহরের কাছে কাঁঠালপাড়া গ্রামে।১৮৭৩- ভারতীয় শাস্ত্রীয় সংগীতশিল্পী গওহর জান। ১৮৮৭- বাংলা ভাষার অন্যতম কবি যতীন্দ্রনাথ সেনগুপ্ত। ১৯৩৪- বাংলাদেশি সাংবাদিক ও সাহিত্যজন, শিল্পকলা একাডেমির সাবেক মহাপরিচালক কামাল লোহানী।

মৃত্যু১৯৩৭- প্রখ্যাত বাঙালি শিশুসাহিত্যিক যোগীন্দ্রনাথ সরকার।১৯৩৯- ইংরেজ ঔপন্যাসিক, কবি, সমালোচক ও সম্পাদক ফোর্ড ম্যাডক্স ফোর্ড।১৯৯৪- শহীদজননী-খ্যাত বাংলাদেশি লেখিকা জাহানারা ইমাম। বর্তমান পশ্চিমবঙ্গের মুর্শিদাবাদে বড়ঞা থানার অন্তর্ভুক্ত সুন্দরপুর গ্রামে রক্ষণশীল বাঙালি মুসলমান পরিবারে জন্ম তার। একাত্তরে তার জ্যেষ্ঠপুত্র শাফী ইমাম রুমী দেশের মুক্তিসংগ্রামে অংশগ্রহণ করেন এবং কয়েকটি সফল গেরিলা অপারেশনের পর পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর হাতে গ্রেফতার হন। পরে নির্যাতনের ফলে মৃত্যুবরণ করেন। বিজয় লাভের পর রুমীর বন্ধুরা রুমীর মা জাহানারা ইমামকে সব মুক্তিযোদ্ধার মা হিসেবে বরণ করে নেন। রুমীর শহীদ হওয়ার সূত্রেই তিনি শহীদ জননীর মর্যাদায় ভূষিত হন। তার বিখ্যাত গ্রন্থ ‘একাত্তরের দিনগুলি’।২০০৪- ভাষাসৈনিক ও মুক্তিযুদ্ধের চরমপত্রখ্যাত এম আর আখতার মুকুল।

Advertisement

দিবসআন্তর্জাতিক নির্যাতনবিরোধী দিবস।আন্তর্জাতিক মাদকবিরোধী দিবস।

কেএসকে/এসইউ/এমএস