অর্থনীতি

মুদ্রা সরবরাহে প্রবৃদ্ধির লক্ষ্য ১২.১ শতাংশ

২০২২-২৩ অর্থবছরের জন্য মুদ্রা সরবরাহের প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ১২ দশমিক ১ শতাংশ। যা সরকারের কাঙ্ক্ষিত মোট দেশজ উৎপাদন (জিডিপি) প্রবৃদ্ধি ও মূল্যস্ফীতির সিলিংয়ের সমষ্টির তুলনায় কিছুটা কম।

Advertisement

নতুন অর্থবছরের মুদ্রানীতি ঘোষণার সময় এ কথা জানান বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির।

বৃহস্পতিবার (৩০ জুন) কেন্দ্রীয় ব্যাংকের জাহাঙ্গীর আলম কনফারেন্স রুমে সংবাদ সম্মেলনে মুদ্রানীতি ঘোষণা করা হয়। ফজলে কবিরের নেতৃত্বে এটাই কেন্দ্রীয় ব্যাংকের শেষ মুদ্রানীতি ঘোষণা।

বিদায়ী গভর্নর বলেন, ২০২২-২৩ অর্থবছরের জন্য প্রক্ষেপিত ব্যাপক মুদ্রার (এম২) প্রবৃদ্ধি ২০২১-২২ অর্থবছরের প্রক্ষেপিত প্রবৃদ্ধির (১৫ দশমিক শূন্য শতাংশ) তুলনায় কম। তবে তা ২০২২ সালের জুনের প্রাক্কলিত ৯ দশমিক ১ শতাংশ প্রবৃদ্ধির তুলনায় বেশি।

Advertisement

তিনি আরও বলেন, ২০২১-২২ অর্থবছরের ন্যায় ২০২২-২৩ অর্থবছরেও ব্যাংকিং খাতের নীট বৈদেশিক সম্পদের প্রবৃদ্ধি কিছুটা ঋণাত্মক হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তবে ১২ দশমিক ১ শতাংশ এম২ প্রবৃদ্ধির মাধ্যমে সরকারি খাতে ৩৯ দশমিক ৪ শতাংশ (১ হাজার ৬৩ বিলিয়ন টাকা) এবং বেসরকারি খাতে ১৪ দশমিক ১ শতাংশ ঋণ বৃদ্ধি করাসহ মোট অভ্যন্তরীণ ঋণ ১৮ দশমিক ২ শতাংশ বাড়বে বলে প্রক্ষেপণ করা হয়েছে।

এছাড়া বাংলাদেশের রপ্তানি আয় ও আমদানি ব্যয় ২০২২-২৩ অর্থবছরে ঊর্ধ্বমুখী থাকার সম্ভাবনা থাকলেও উচ্চভিত্তির কারণে এগুলোর প্রবৃদ্ধি গত অর্থবছরের তুলনায় কম হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানান বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর।

তিনি জানান, ২০২১-২২ অর্থবছরে জনশক্তি রপ্তানির সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় ২০২২-২৩ অর্থবছরে রেমিট্যান্সের অন্তঃপ্রবাহ বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

ইএআর/জেডএইচ/জিকেএস

Advertisement