খেলাধুলা

হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ে প্রথমার্ধ গোলশূন্য উরুগুয়ে-পর্তুগাল ম্যাচ

বেন্টানচুর নিজেকে দুর্ভাগা ভাবতেই পারেন। মাঝমাঠ থেকে একাই বল টেনে নিয়ে ডি-বক্সের ঠিক আগে তিনজন পর্তুগিজ ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে যখন ভেতরে ঢোকেন তখন তার সামনে শুধু গোলরক্ষক। কিন্তু তাকেই তিনি পরাস্ত করতে পারেননি। গোলটি হলে হয়তো এবারের বিশ্বকাপের সেরা গোলের তকমা পেত। আর উরুগুয়েও এবারের বিশ্বকাপে প্রথম গোলের দেখা পেতো। কিন্তু তার ভাগ্যের মতো উরুগুয়ের ভাগ্যও বদলায়নি।

Advertisement

পর্তুগালের বিপক্ষে জমজমাট লড়াইয়ে প্রথমার্ধ গোলশূন্য অবস্থাতেই শেষ করে দুই দল।

২০১৮ বিশ্বকাপে পর্তুগালের বিপক্ষে ২-১ ব্যবধানে জয়ের সুখস্মৃতি নিয়ে খেলতে নামে উরুগুয়ে। ২০১৬ সালের ইউরো চ্যাম্পিয়নদের বল দখলের লড়াইয়ে একদমই পিছিয়ে ছিল তারা। ম্যাচের প্রথম সুযোগটি পায় পর্তুগাল ৪ মিনিটে। ডি-বক্সের ভেতর রোনালদোর পাস থেকে ভলি করতে গিয়ে বল গোলবারের অনেক উপর দিয়ে মারেন কার্ভালহো।

৬৯% বল নিজেদের দখলে নিয়েও ম্যাচের পুরো প্রথমার্ধে একটি শটও গোলমুখে নিতে পারেনি পর্তুগাল। অন্যদিকে শক্তিশালী রক্ষণভাগ বেশ পর্তুগিজ আক্রমণভাগের খেলোয়াড়দের বেশ ভুগিয়েছে। ৩২ মিনিটে ম্যাচের সবচেয়ে আলোচিত এবং গোলের সবচেয়ে সহজ সুযোগটি মিস করেন বেনতানচুর। মাঝমাঠ থেকেই বল টেনে নিয়ে ডি-বক্সের ভেতর ঢুকে গোলরক্ষককে পরাস্ত করতে ব্যর্থ হন তিনি। এমন সুযোগ নষ্ট করে মাঠেই নিজের উপর রাগ ঝাড়েন এই টটেনহ্যাম মিডফিল্ডার। প্রথম ৪৫ মিনিটে আর তেমন গোলের সুযোগ তৈরি করতে পারেনি দুই দলের কেউই। ফলে গোলশূন্য ড্র অবস্থাতেই শেষ হয় খেলা।

Advertisement

আরআর/এমএইচআর