আইন-আদালত

নয়াপল্টনেই গণসমাবেশ করতে আমরা অনড়: ব্যারিস্টার কায়সার কামাল

বিএনপির আইনজীবী ফোরামের সদস্যসচিব ও সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার কায়সার কামাল বলেছেন, বিএনপির ঢাকা বিভাগীয় গণসমাবেশ নয়াপল্টনেই করার জন্য আমরা অনড়। সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে কোনো জনসভা করা হবে না কারণ সোহরাওয়ার্দী উদ্যান সন্ত্রাসীদের অভয়ারণ্য।

Advertisement

বুধবার (৭ ডিসেম্বর) সুপ্রিম কোর্ট ও আশপাশের রাস্তায় মিছিল শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে এক বিফ্রিংয়ে এ কথা বলেন তিনি। আগামী ১০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠেয় বিএনপির গণসমাবেশ সফল করতে মিছিল বের করে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম।

মিছিলটি সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির ভবন থেকে মিছিলটি শুরু করে হাইকোর্ট মাজারগেট দিয়ে মূল সড়কে যায়। এরপর শিক্ষাভবন, কদমফোয়ারা, বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের পাশের গেট দিয়ে আবার সমিতি ভবনে ফিরে আসে।

মিছিল শেষে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি ও সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল এ জে মোহাম্মদ আলী বলেন, আগামী ১০ ডিসেম্বর গণসমাবেশকে সফল করতে আমরা প্রচার-প্রচারণার উদ্দেশ্যে মিছিল করেছি। আশা করছি আমরা সফল হবো।

Advertisement

ওই সময় ব্যারিস্টার কায়সার কামাল বলেন, স্যার (এ জে মোহাম্মদ আলী) যেটা বলতে চাচ্ছিলেন সেটা হলো সারাদেশের ১০টি বিভাগে কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়েছিল, তিন মাস আগে। সেই কর্মসূচির অংশ হিসেবে সর্বশেষ ঢাকা বিভাগীয় সমাবেশ নয়াপল্টনে করতে পুলিশ প্রশাসনকে অনুরোধ জানিয়েছিলাম। আমরা এখনো দলীয়ভাবে এই সিদ্ধান্তে অনড়, নয়াপল্টনেই সমাবেশ করতে চাই। আমরা সোহরাওয়ার্দীতে কোনো জনসভা আমরা করবো না। কারণ এটা সন্ত্রাসীদের অভয়ারণ্য।

কায়সার কামাল আরও বলেন, দেশের সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবীরা বিএনপির এই দাবির সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণা করে রাজপথে নেমে এসেছেন গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার করতে, ভোটাধিকার পুনরুদ্ধার করতে এবং তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা পুনঃপ্রবর্তন করতে।

মিছিলের নেতৃত্ব দেন জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি ও সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল এ জে মোহাম্মদ আলী। তার সঙ্গে ছিলেন ফোরামের কেন্দ্রীয় কমিটির মহাসচিব ব্যারিস্টার কায়সার কামাল, সুপ্রিম কোর্ট ইউনিটের সভাপতি অ্যাডভোকেট আব্দুল জব্বার ভূঁইয়া, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট গাজী মো. কামরুল ইসলাম সজল, সাবেক সম্পাদক ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল, সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী গোলাম আব্বাস চৌধুরী দুলাল, বারের সাবেক ট্রেজারার অ্যাডভোকেট ফাহিমনা নাসরিন মুন্নীসহ তিন শতাধিক আইনজীবী। সর্বশেষ যোগদান করেন ফোরামের সাবেক সভাপতি ও সিনিয়র আইনজীবী অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন।

এফএইচ/বিএ/জিকেএস

Advertisement