আজকের জোকস: ট্যাক্সি ড্রাইভার ও বল্টুর স্ত্রী

জাগো নিউজ ডেস্ক
জাগো নিউজ ডেস্ক জাগো নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ১১:২৯ এএম, ০৭ সেপ্টেম্বর ২০২২

ট্যাক্সি ড্রাইভার ও বল্টুর স্ত্রী
নতুন বউ নিয়ে বেড়াতে যাচ্ছে বল্টু । ট্যাক্সিতে পেছনের সিটে বসে স্বামী-স্ত্রীতে চলছে মধুর আলাপ! এমন সময় লক্ষ্য করলেন, ড্রাইভার গাড়ির আয়নায় বারবার স্ত্রীর দিকে তাকাচ্ছে। বল্টু ভীষণ ক্ষেপে গেলেন—
বল্টু: এই ব্যাটা, অমন মিটমিট করে বারবার কী দেখিস? দাঁড়া, তোর দেখা আমি বের করছি। তুই পেছনে এসে বস, আমিই গাড়ি চালাব!

****

বাচ্চার কান্না যখন ভালো লাগে
স্ত্রী রাত করে অফিস থেকে ফিরে দেখলেন বাচ্চা কান্নাকাটি করছে। পাশে তার বাবা হতবুদ্ধি অবস্থায় দাঁড়িয়ে আছে। তার হাতে বাবুর অনেকগুলো খেলনা। এটা দেখে স্ত্রী বিরক্ত হয়ে বললেন—
স্ত্রী: এত সার্কাস না করে বাচ্চাকে ঘুমপাড়ানি গান শোনালেই তো পারতে! জান না, ওই গান শুনলে সে ঘুমিয়ে পড়ে!
স্বামী: সেই চেষ্টাও করেছি। কিন্তু তাতে বাচ্চার চোখে ঘুম তো এলোই না, উল্টা পাশের ফ্ল্যাটের ভাবি এসে বলে গেলেন, ‘এর চেয়ে বাচ্চাকে কাঁদতে দিন’। আপনার গানের চেয়ে ওর কান্না বেশি সুরেলা।

****

দাদির বয়স ১০৭ বছর
চকলেটের দোকানে খোকার সঙ্গে দেখা হলো এক ভদ্রলোকের—
ভদ্রলোক: খোকা, এত চকলেট খেও না। তোমার দাঁতে পোকা হবে, পেট খারাপ হবে, অল্প বয়সেই রোগ হবে।
খোকা: আপনি বুঝি অনেক দিন বাঁচতে চান?
ভদ্রলোক: অবশ্যই।
খোকা: আমার দাদির বয়স ১০৭ বছর।
ভদ্রলোক: তোমার দাদি নিশ্চয়ই ছোটবেলায় এত বেশি চকলেট খেতেন না।
খোকা: সেটা জানি না। তবে দাদি কখনোই অন্যের ব্যাপারে নাক গলান না।

কেএসকে/এমএস

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।