স্ত্রীসহ ৫ বছরের জন্য নিষিদ্ধ হলেন শিক্ষক তানভীর


প্রকাশিত: ০২:৩৫ পিএম, ০১ অক্টোবর ২০১৬

উত্তরপত্র মূল্যায়নে অনিয়মের দায়ে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের দুই শিক্ষককে পরীক্ষা কার্যক্রম থেকে পাঁচ বছরের জন্য নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

শনিবার বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা পরিষদের এক সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয় বলে জানান বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক চৌধুরী সারওয়ার জাহান।

তারা হলেন গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক তানভীর আহমদ এবং তার স্ত্রী ও একই বিভাগের প্রভাষক সোমা দেব।

গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগ সূত্রে জানা যায়, ২০১৫ সালের তৃতীয় বর্ষের ৩০৫ নম্বর কোর্সের যৌথভাবে শিক্ষক ছিলেন তানভীর আহমদ এবং সোমা দেব। কোর্সটির দুটি ইনকোর্সের মধ্যে প্রথম ইনকোর্সের দায়িত্বে ছিলেন তানভীর আহমদ। সেটির নম্বর তানভীর আহমদের দেয়ার কথা থাকলেও নম্বরপত্রে উল্লেখ আছে সোমা দেবের হাতে লেখা নম্বর। সেখানে কয়েকটি নম্বরে ঘষামাজা করেন সোমা দেব। ঘষামাজা জায়গাগুলোতে স্বাক্ষরও করেন সোমা দেব। তবে মূল পরীক্ষকের স্বাক্ষর হিসেবে উল্লেখ আছে তানভীর আহমদের স্বাক্ষর।

নম্বরপত্রে এমন অনিয়মের ফলে ওই বর্ষের আটজন শিক্ষার্থী ইনকোর্স দিয়েও কোনো নম্বর পায়নি। বিষয়টি নিয়ে তৃতীয় বর্ষের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক কমিটির বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। সেই অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন আজ এ সিদ্ধান্ত নিয়ছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক চৌধুরী সারওয়ার জাহান বলেন, উত্তরপত্র মূল্যায়নে অনিয়মের অভিযোগ প্রমাণ হওয়ায় তাদের দুজনকে বহিষ্কার করেছে শিক্ষা পরিষদ। আগামী পাঁচ বছর তারা পরীক্ষা কার্যক্রমে অংশ নিতে পারবেন না।

এর আগে তানভীর আহমদের সাবেক স্ত্রী একই বিভাগের শিক্ষক আকতার জাহানের মৃত্যুর ঘটনায় গত ২২ সেপ্টেম্বর সহযোগী অধ্যাপক তানভীর আহমদকে বিভাগের একাডেমিক কার্যক্রম থেকে সাময়িক প্রত্যাহার করা হয়। বিভাগের ২১ জন শিক্ষকের মধ্যে ১৬ জন শিক্ষকের স্বাক্ষর সম্বলিত অভিযোগের পেরিপ্রেক্ষিতে ওই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছিল।

রাশেদ রিন্টু/এআরএ/আরআইপি

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস নিয়ে লিখতে পারেন আপনিও - jagofeature@gmail.com

আপনার মতামত লিখুন :