নিরাপত্তা সঙ্কটে মাভাবিপ্রবি

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি টাঙ্গাইল
প্রকাশিত: ০২:৪৯ পিএম, ২৭ নভেম্বর ২০১৭

১৮ বছর অতিক্রম করলেও জোরদার হয়নি মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তা ব্যবস্থা। প্রায় সাড়ে পাঁচ হাজার শিক্ষার্থীর এ বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস অরক্ষিত।

বিচ্ছিন্নভাবে প্রায় ৫৭ একর জায়গার ওপর প্রতিষ্ঠিত বিশ্ববিদ্যালয়ে রয়েছে ৫টি গেট, ৩টি একাডেমিক ভবন, ৫টি হল, প্রসাশনিক ভবন, ভিসির বাসভবন, অতিথি ভবন, ক্যাফেটেরিয়া, শিক্ষক-কর্মকর্তা ডরমেটরি এবং তৃতীয়-চতুর্থ শ্রেণি কর্মচারী ডরমেটরি।

এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেতরে রয়েছে ভাসানীর মাজার, ৫টি পাবলিক রাস্তা, ২টি প্রাইমারি স্কুল, ২টি হাইস্কুল, ১টি কলেজ, ১টি কেজি স্কুল, ১টি হেফজ খানা এবং ১টি স্থানীয় মন্দির।

বিশ্ববিদ্যালয়ের পাশেই সন্তোষ বাজার হওয়ায় এলাকার জনগণ বিশ্ববিদ্যালয়ের রাস্তাগুলো ব্যবহার করে। স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের অনুকরণ করতে গিয়ে তৈরি করে বিশৃঙ্খলা।

ক্যাম্পাস সূত্রে জানা গেছে, তিন বছর আগে শুরু করা সীমানারপ্রাচীর নির্মাণব্যয় প্রায় ১ কোটি ৫০ লাখ টাকা। প্রাচীরগুলো এমনভাবে নির্মাণ করা হয়েছে যার নিচ দিয়ে যে কেউ অনায়াসে ও বিনা বাধায় যাতায়াত করতে পারে।

অরক্ষিত মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীরা প্রায়ই বহিরাগত সন্ত্রাসী হামলার শিকার হয় এবং ঘটে চুরির ঘটনা।

গত ১২ এপ্রিল বহিরাগত হামলার শিকার হন গণিত বিভাগের রাগিব আলম রানা ও গত ২ অক্টোবর রসায়ন বিভাগের মোখলেছুর রহমান মুহিত হামলার শিকার হন।

এছাড়া সম্প্রতি ৩টি পানি তোলার মোটর, মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মান্নান হলের ৫৬টি ফ্যান, ভিসির বাসভবনসহ বিভিন্ন চুরির ঘটনা ঘটে।

এতো সমস্যার মধ্যে কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা প্রহরী মাত্র ৩০ জন। যেখানে প্রহরী প্রয়োজন ন্যূনতম ৭৫ জন। ৮ ঘণ্টার রুটিন ডিউটিতে ৬ জন নিরাপত্তা প্রহরীকে ওভারটাইম করালেও বিভিন্ন জায়গা থাকে নিরাপত্তা প্রহরী শূন্য।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক নিরাপত্তা প্রহরী বলেন, নিরাপত্তা প্রহরী কম হওয়ায় ওভারটাইম আমাদের ওপর চাপিয়ে দেয়া হয়। যেখানে অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তা প্রহরী অভারটাইম পায় ৪০০-৫০০ টাকা। আমরা পাই ১৪৪ টাকা।

এ প্রসঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. সিরাজুল ইসলাম বলেন, আমরা ডাইভারশন রাস্তার পরিকল্পনা করেছি। আমরা ইউজিসিতে ৩০ জন আনসারের চাহিদা দিয়েছি। এখনও অনুমোদন হয়নি। বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন।

আরিফ উর রহমান টগর/এএম/আইআই

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস নিয়ে লিখতে পারেন আপনিও - jagofeature@gmail.com

আপনার মতামত লিখুন :