গোলমাল করলে আমিও মাস্টার মশাইয়ের মতো শেখাবো

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়
প্রকাশিত: ১০:০৬ পিএম, ১৬ জানুয়ারি ২০১৮

পিনপতন নিস্তব্ধতা। উপস্থিত সকলেই এক ধ্যানে ভারতের সাবেক রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জির বক্তব্য শুনছেন। ৩৯ মিনিটের তথ্যবহুল দীর্ঘ বক্তৃতা চলাকালে সবাইকে কিছুক্ষণের জন্য হাস্যরস্যেও মাতিয়ে রাখেন বাঙালি জামাই প্রণব মুখার্জি।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে মঙ্গলবার বিশেষ সমাবর্তন ও ডি-লিট ডিগ্রি গ্রহণ শেষে প্রধান অতিথির বক্তব্যের ২৬ মিনিটের মাথায়ি তিনি বলেন, ‘আমি বক্তব্য বেশি বাড়াবো না, একটু বাড়াবো। বেশি সময় নেব না।

একটি কথা আছে, ‘ওয়ান্স টিচার ইজ অলওয়েজ এ টিচার’। আমি যাত্রা শুরু করেছিলাম অধ্যাপক হিসেবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত একটি কলেজে ৫-৬ বছর রাষ্ট্রবিজ্ঞানে অধ্যাপনা করেছিলাম। তারপর রাজনীতির টানে চলে এলাম। মাঝে মাঝে পার্লামেন্টে অনেকে অভিযোগ করতেন যে, আপনি কি ক্লাস নিচ্ছেন? নাকি ইকোনমিকস, ইন্টারন্যাশনাল রিলেশনশিপ বিষয় পড়াচ্ছেন।’ তার এ কথায় অনুষ্ঠানস্থলে উপস্থিত সকলেই কড়তালি ও হাসি দিয়ে বাহবা দেন।

এ সময় তিনি আরও বলেন, তারা বলতো আপনি মন্ত্রী। সরকারি নীতি ব্যাখ্যা করবেন। আমি বলতাম না, ব্যাখা করলেও আপনারা তো চিলড্রেনের মতো প্রায়ই গোলমাল করেন। কিছু মনে করবেন না পার্লামেন্টের মর্যাদা সম্পর্কে আমি অবহিত।

বক্তব্যের এ অংশের পরেই তিনি তরুণদের চাকরিমুখি না হয়ে গবেষণার প্রতি জোর দিতে আহ্বান জানান। তিনি বলেন, বড় মাইনের চাকরিতে পরিবার উপকৃত হয়। তবে সার্বিকভাবে দেশ কতটা উপকৃত হয়। চাকরির পেছনে না ছুটে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির কাছে গিয়ে বলবেন, স্যার আমি গবেষণা করতে চাই। এর জন্যে পরিবেশ তৈরি করে দিতে হবে। গবেষকদের উপযুক্ত সাম্মানিক দেয়ার দায়িত্ব সমাজ ও রাষ্ট্রের। যতদিন না পর্যন্ত এ পরিবেশ তৈরি করতে পারবো ততদিন আমরা পিছিয়ে থাকবো।

আবদুল্লাহ রাকীব/এএম/আইআই

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস নিয়ে লিখতে পারেন আপনিও - jagofeature@gmail.com

আপনার মতামত লিখুন :