চবি শিক্ষকদের কক্ষে শিক্ষার্থীদের তালা

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক চবি
প্রকাশিত: ০৪:১১ পিএম, ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) প্রাণিবিদ্যা বিভাগের চতুর্থ বর্ষের ২০১৫ সালের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয় ২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে। যা শেষ হয় একই বছরের এপ্রিল মাসে। দীর্ঘ ৯ মাস পেরিয়ে গেলেও এখনও প্রকাশিত হয়নি ফলাফল। গত ১ বছরে ধরে থমকে আছে দ্বিতীয় বর্ষের ফলাফল।

ফলাফল জটে আটকে পড়া শিক্ষার্থীরা দ্রুত ফলাফল ঘোষণার দাবিতে রোববার বিভাগের সভাপতি প্রফেসর ড. গাজী আসমত, প্রফেসর মঞ্জুরুল কিবরিয়া, প্রফেসর ড. মোহাম্মদ আলী আজাদী ও প্রফেসর ড. ফরিদ আহসানের কক্ষে তালিয়ে লাগিয়ে দেয়। শিক্ষকদের দুই ঘণ্টা অবরুদ্ধ করে রাখার পর বেলা ২টার দিকে প্রক্টরিয়াল বডির আশ্বাসে তালা খুলে দেয় বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা।

এর আগে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে বন্ধ হয়ে পড়ে বিভাগের একাডেমিক কার্যক্রম। এ সময় তারা বিভাগের সামনে অবস্থান নিয়ে ফলাফল ঘোষণার দাবিতে স্লোগান দিতে থাকে।

বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা জানায়, কয়েক শিক্ষকদের মধ্যে রেষারেষি ও কোন্দলের কারণে তাদের শিক্ষাজীবন বিপন্ন। সেশনজটের ঘানি টানার পাশাপাশি, শিক্ষকদের উদাসীনতায় ফলাফল জটেরও শিকার তারা।

চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী আসিফ আহমেদ শুভ জাগো নিউজকে বলেন, শিক্ষকদের নোংরা রাজনীতি ও কোন্দলের কারণে বিভাগের এ করুণ দশা। আগামী ৩ দিনের মধ্যে ফলাফল প্রকাশের আল্টিমেটাম দিয়েছি আমরা। এ সময়ের মধ্যে ফল প্রকাশে ব্যর্থ হলে যেকোনো পরিস্থিতির জন্য শিক্ষকরা দায়ী থাকবেন।

এদিকে, খবর পেয়ে অবরুদ্ধ শিক্ষকদের মুক্ত ও শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আলোচনা করতে বেলা ২টার দিকে প্রক্টরিয়াল বডির সদস্যরা ঘটনাস্থলে যান।

এ বিষয়ে সহকারী প্রক্টর নিয়াজ মোর্শেদ রিপন জাগো নিউজকে বলেন, বিষয়টি নিয়ে আমরা বিভাগের সভাপতির সঙ্গে আলোচনায় বসেছি। শিক্ষকদের কক্ষের তালাও খুলে দেয়া হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।

তবে এ বিষয়ে বিভাগীয় সভাপতি প্রফেসর ড. গাজী আসমতের সঙ্গে বার বার যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

আবদুল্লাহ রাকীব/এএম/আরআইপি

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস নিয়ে লিখতে পারেন আপনিও - jagofeature@gmail.com

আপনার মতামত লিখুন :