আমরা একুশের চেতনা লালন করি : জাবি উপাচার্য

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬:২৬ পিএম, ১৫ এপ্রিল ২০১৮

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলাম বলেছেন, একুশ আমাদের আবেগের বিষয়। আমরা একুশের চেতনা লালন করি। একুশ আমাদের গর্বেরও বিষয়। রোববার বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে অমর একুশে ভাস্কর্যের সংস্কার ও মূল নকশা অনুযায়ী সম্পন্নকরণ অনুষ্ঠানে উপাচার্য একথা বলেন।

উপাচার্য অমর একুশের ভাস্কর্যের শিল্পী চৌধুরী জাহানারা পারভীনের প্রতি শ্রদ্ধা ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বলেন, শিল্পী তার মায়া, মমতা ও স্নেহ দিয়ে মূল নকশা অনুযায়ী ভাস্কর্যটি সম্পন্ন করেছেন। তাঁর অবদান কখনোই ভুলবার নয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারী তাঁর সৃষ্টিকর্মের কথা সব সময় স্মরণ করবেন।

অনুষ্ঠানে কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক শেখ মনজুরুল হক অমর একুশের ভাস্কর্য নির্মাণের ইতিহাস তুলে ধরেন।

শিল্পী চৌধুরী জাহানারা পারভীন বলেন, অধ্যাপক ড. কাজী সালেহ আহমেদ উপাচার্য থাকাকালীন তিনি অমর একুশের এ ভাস্কর্য নির্মাণের আগ্রহ প্রকাশ করলে তাতে কর্তৃপক্ষ অনুমোদন দেন। ১৯৯১ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি উপাচার্য ড. কাজী সালেহ আহমেদ এ ভাস্কর্যটি উদ্বোধন করেন। সেই সময়ে এটি মূল নকশা অনুযায়ী সম্পন্ন করা সম্ভব হয়নি। বিগত সময়গুলোতে ভাস্কর্যটির বিভিন্ন অংশে ক্ষতি হয়। ফলে আমি বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান কর্তৃপক্ষের সঙ্গে এর সংস্কার এবং মূল নকশা অনুযায়ী এটি সম্পন্ন করার আগ্রহ ব্যক্ত করি। কর্তৃপক্ষ তা সাদরে গ্রহণ করেন এবং সব ধরনের সহযোগিতা অব্যাহত রাখেন।

jagonews24

শিল্পী পারভীন আরও বলেন, একুশের ভাষা আন্দোলনে পুরুষের পাশাপাশি অনেক মহিলাও জীবন দান করেছেন। ভাস্কর্যের মধ্যখানে একজন মহিলা তারই প্রতীক। মহিলা উপরের দিকে তাকিয়ে আছেন। সন্তান বা ভাই হারানোর শোক মহিলাকে দুঃখিত করলেও উর্ধ্বকাশে তার মুখটি সাহসের প্রতীক।

শিল্পী বলেন, ভাস্কর্যটির পাদদেশে ৬টি সিড়ি দেয়া হয়েছে। এই ৬ সিঁড়ি ৬ দফাসহ আমাদের স্বাধীনতা ও মুক্তি আন্দোলনের বিভিন্ন পর্যায়ের ৬টি সালের স্মারক। ভাস্কর্যটির পাশে পলাশ ফুলের গাছ লাগানো হয়েছে। বাংলার ঋতু বৈচিত্রে পলাশ ফুল ফুটার সময় একুশ আসে তাই। শিল্পী ভাস্কর্যটির অবয়ব কখনোই পরিবর্তন না করার আহবান জানান।

হাফিজুর রহমান/আরএ/আরআইপি

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস নিয়ে লিখতে পারেন আপনিও - jagofeature@gmail.com

আপনার মতামত লিখুন :