সালাম দিয়ে মামা পরিচয়ে হলে প্রবেশ, অতঃপর লক্ষাধিক টাকার চুরি

জাগো নিউজ ডেস্ক
জাগো নিউজ ডেস্ক জাগো নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৩:৪৭ এএম, ০২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

‘আসসালামু আলাইকুম। আমি হলের ভেতরে প্রবেশ করতে চাই। ৩১২ নম্বর কক্ষে আমার ভাগ্নে থাকে। তার সঙ্গে দেখা করতে চাই’...‘আপনার ভাগ্নেকে তিন তলা থেকে হলের নিচে আসতে বলুন।’ অতঃপর ভাগ্নের নম্বরে ফোন। পরে লাউডস্পিকারে শোনা গেল-‘মামা আমি গোসলে আছি। টাওয়েল পরে আসতে নিচে নামতে পারব না। আপনি দারোয়ানকে বলে রুমে চলে আসুন।’ এর কয়েক ঘণ্টার পর ঘটে গেছে দুটি ল্যাপটপ, দুটি মোবাইল ফোন ও কয়েক হাজার টাকা চুরির ঘটনা।

ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার জুমার নামাজ পড়া চলাকালীন। ঘটনাস্থল খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুয়েট)। আর কথোপকথনগুলো হয়েছে ওই চোর ও হলের দারোয়ানের মধ্যে। এমনকি ভাগ্নে বলে যে ফোন রিসিভ করেছে সেটিও সাজানো।

পরে পুরো ঘটনাটি নিয়ে শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টা ২ মিনিটে ফেসবুকে একটা পোস্ট দিয়েছেন কুয়েটের ছাত্র রাকিবুল রাকিব। নিম্নে পোস্টটি হুবহু তুলে ধরা হলো-

ড. এম. এ রশিদ হল, কুয়েট, রুম নং- ৩১২...আজ শুক্রবার দুপুরবেলা, সবাই নামাজের জন্য বের হয়েছে বা হচ্ছে। এমনসময় এই লোকটা হলে ঢুকে গেছে। গেটে দারোয়ান তার কাছে জানতে চায়ছে- কোথায় যায়তে চায়? উনি সুন্দরভাবে একজন অফিসারের মত কথা বলেছেন, বলেছেন- তিনি তার ভাগ্নের সাথে দেখা করতে আসছেন, তিন তালার একটা রুম নং এবং একজন স্টুডেন্টের নামও বলেছেন।

দারোয়ান বলছেন- ভাগ্নে কে নিচে আসতে বলেন। উনি ফোন দিয়েছেন... লাউডস্পিকারে শুনিয়ে দিয়েছেন এমন- ভাগ্নে বলতেছে সে এখন গোছল করতেছে, টাওয়েল পরা আসতে পারবে না। দারোয়ান তাকে ছেড়ে দিয়েছে। তারপর কত সুচারুভাবে তার কাজটা সম্পন্ন করেছে..তা সিসিটিভি ফুটেজে বিদ্যমান। রুমে একজন ঘুমাচ্ছিল। তারপরও কতটা সাহস তার।

দুইটা ল্যাপটপ(চার্জার সহ), দুইটা মোবাইল...ড্রয়ার খুলে মানিব্যাগ থেকে দুই-তিন হাজার টাকা... গুছিয়ে নিয়ে গেছে। যাওয়ার সময় দারোয়ানের সাথে আবার মিষ্টি করে ‘আসি...সালাম..’ও দিয়ে গেছে।

আমরা মুভিতে যেমনটা দেখি ঠিক তেমনি যেনো সবকিছু হয়ে গেলো। যার সাথেই দেখা হয়েছে- একটা হাসিমুখ, সালামও দিছে দু-একজনকে। সবাই ভেবেছে- হয়তো কারো গেস্ট। যায় হোক...তার ছবি আছে...ভিডিও আছে। আমরা পুলিশি সহায়তা নিচ্ছি। জানিনা কতটুকু কি হবে। আমরা আশে পাশে কথা বলেছি...দোকানে...বাস কাউন্টারে। অনেকেই বলছে...ওকে দেখছে কোথাও না কোথাও।

ল্যাপটপটা কতটা গুরুত্বপূর্ণ একবার ভাবেন- আমাদের ফাইনাল ইয়ার থিসিস ডিফেন্স আর ২০ দিন পর... সব কাজ ওখানে করা আছে। আশা করি...আমরা সবাই এগিয়ে আসলে চোরটাকে খুজে বের করা সম্ভব। ফেসবুকের মাধ্যমেও শেয়ার করে যতটা রিচ করা যায় আর কি, আমরা চেষ্টা করতে পারি।

কেউ যদি কোনো ইনফো পান,,, প্লিজ কন্টাক্ট করুন।

জাকারিয়া: 01701040854
মোজাহিদ: 01961620285

এসআর

 

 

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস নিয়ে লিখতে পারেন আপনিও - [email protected]