শেকৃবিতে আগুন আতঙ্ক, রোববারের পরীক্ষা স্থগিত

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়
প্রকাশিত: ০৬:২৭ পিএম, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯
ফাইল ছবি

শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শেকৃবি) কৃষকরত্ন শেখ হাসিনা হলে গত ১৭, ২১ ও ২২ ফেব্রুয়ারি কয়েক দফায় আগুন লাগায় চরম আতঙ্কে আছে সেখানকার আবাসিক ছাত্রীরা।

দুর্ঘটনা এড়াতে প্রশাসন ওপরের তলাগুলোতে গ্যাস সংযোগ বন্ধ করে দিয়েছে। সেই সঙ্গে বিদ্যুৎ ও পানির লাইনও বন্ধ থাকায় চরম দুর্ভোগের শিকার হন ছাত্রীরা। এ কারণে অধিকাংশ ছাত্রী হল ত্যাগ করেছেন। তবে এখন বিদ্যুৎ ও পানির লাইন স্বাভাবিক আছে।

সর্বশেষ শুক্রবার (২২ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে আগুন লাগার ঘটনা ঘটে। তবে এখন পর্যন্ত কোনো তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়নি। এই দুর্ঘটনাটির পেছনে কারও হাত থাকতে পারে বলে ধারণা করছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

জানা গেছে নবনির্মিত ৬ থেকে ১০ তলা পর্যন্ত ফ্লোর ঠিকাদারদের কাছ থেকে এখনও বুঝে নেয়নি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। শিক্ষার্থীদের আধিক্যের কারণে তবুও এসব ফ্লোরে সিট দেয়া হচ্ছে। হলটির আবাসিক ছাত্রীদের অভিযোগ, হলের প্রভোস্টসহ বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন তাদের নিরাপত্তার বিষয়টি যথাযথ গুরুত্বের সঙ্গে দেখছে না।

উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. সেকেন্দার আলী সাংবাদিকদের জানান, এতে যান্ত্রিক ত্রুটি থাকতে পারে, আবার এর পেছনে কোনো ধর্মীয় উগ্রপন্থীদেরও হাত থাকতে পারে। শিক্ষার্থীরা যেহেতু ভালোমতো পড়াশোনা করতে পারেনি, তাই রোববার সব অনুষদের পরীক্ষা বন্ধ করা হয়েছে। নবনিযুক্ত শিক্ষিকাদের দুইজনকে ওই হলে আমরা পর্যবেক্ষণ করার নির্দেশনা দিয়েছি এবং রাতে উপরের প্রতিটি ফ্লোরে একজন করে লোক নিয়োগ দেয়া হয়েছে সার্বিক বিষয় পর্যবেক্ষণের জন্য।

তিনি আরও বলেন, আগামী জুনের দিকে প্রশাসন ঠিকাদারদের কাছ থেকে ফ্লোরগুলো বুঝে নেবে। আর লিফট সংযোগ দিতে আরও এক থেকে দেড় মাসের মতো সময় লাগতে পারে।

মো. রাকিব খান/এমএমজেড/জেআইএম

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস নিয়ে লিখতে পারেন আপনিও - jagofeature@gmail.com

আপনার মতামত লিখুন :