নাম প্রকাশ না করে ২৯৯ জনকে বিতর্কিত করা হলো

অভিযোগের ভিত্তিতে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির বিতর্কিত ১৯ জনের পদ শূন্য ঘোষণা করা হলেও তাদের নাম জানানো হয়নি।

নাম না জানানোর কারণে এখন কমিটির সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক ব্যতীত বাকি ২৯৯ জনের মধ্যে কারা বিতর্কিত তা নিয়ে চললে আলোচনা।

বুধবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রের (টিএসসি) সন্ত্রাসবিরোধী রাজু স্মারক ভাস্কর্যের সামনে সংবাদ সম্মেলনে পদবঞ্চিতরা বলেন, এটা একটা তামাশা। এর মাধ্যমে কমিটির বাকি ২৯৯ জনকেই বিতর্কিত করা হলো।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সাবেক কমিটির প্রচার সম্পাদক সাইফ বাবু। তিনি দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত অবস্থান কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেন।

ছাত্রলীগের সাবেক দফতর বিষয়ক উপ-সম্পাদক শেখ নকিবুল ইসলাম সুমন বলেন, যে ১৯টি পদ শূন্য করা হয়েছে, তাদের নাম প্রকাশ করতে হবে। এটা কেন গোপন করা হলো। এতে বাকি ২৯৯ জনকেও বিতর্কিত করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, শুধু ১৯ জন নয় কমিটিতে থাকা বাকি বিতর্কিতদেরও বহিষ্কার করতে হবে। তারা ছাত্রলীগের নাম ব্যবহার করে কোনো ধরনের আকাম করবে, সেটা আমরা মেনে নেব না।

রোকেয়া হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি বিএম লিপি আক্তার বলেন, বিতর্কিদের তালিকা অনেক বড়। মাত্র ১৯ জনের পদ শূন্য করে প্রহসন করা হয়েছে।

৪৮ ঘণ্টার মধ্যে শূন্য করা ১৯ জনের নাম প্রকাশ করার আহ্বান জানান তিনি।

সাইফ বাবু বলেন, আন্দোলনের মুখে ছাত্রলীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক প্রথমে ১৭ জনের কথা স্বীকার করলেও ১৪ দিন পর গতকাল রাতে ১৯ জনের পদ শূন্য করার কথা উল্লেখ করে প্রেস বিজ্ঞপ্তি দিয়েছেন। তাদের এই পদক্ষেপ আজ প্রমাণ করল আমাদের দাবি ও আন্দোলন গুরুত্বহীন ছিল না। ১৯টি পদ শূন্য হলেও এখনও যে যার মতো স্বপদে বহাল আছে। এটা সুপরিকল্পিত নয়, অপরাজনীতি, চাতুরি। এগুলো অনেক হয়েছে, অনেক সহ্য করেছি। অবিলম্বে শূন্য হওয়া ১৯ জনের নাম ও পদের বিষয়টি স্পষ্ট করুন।

এ সময় সমস্যা সমাধানের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাক্ষাত কামনা করেন তিনি।

এমএইচ/জেডএ/এমকেএইচ

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস নিয়ে লিখতে পারেন আপনিও - jagofeature@gmail.com

আপনার মতামত লিখুন :