বঙ্গবন্ধুর পলাতক ৬ খুনির প্রতীকী ফাঁসি কার্যকর

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যাকারী পলাতক ৬ খুনির প্রতীকী ফাঁসি কার্যকর করছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু)।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রের (টিএসসি) সামনে খুনিদের প্রতীকী ফাঁসি কার্যকর করা হয়।

এর আগে সেখানে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। ডাকসুর স্বাধীনতার সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক সাদ বিন কাদের চৌধুরীর সভাপতিত্বে আলোচনা সভার উদ্বোধন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আখতারুজ্জামান।

সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান, ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন, ডাকসুর জিএস ও ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি সঞ্জিত চন্দ্র দাস এবং সাধারণ সম্পাদক ও ডাকসুর জিএস সাদ্দাম হোসেন।

আলোচনা সভায় অধ্যাপক ডক্টর মোহাম্মদ আখতারুজ্জামান বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবন দর্শন ছিল অসাম্প্রদায়িক, মানবিক এবং উদারনৈতিক মূল্যবোধের চেতনা। এটি ছিল আমাদের মুক্তিযুদ্ধের চেতনা। ফলশ্রুতিতে মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে বিনষ্ট করার লক্ষ্যেই জাতির জনককে হত্যা করা হয়েছিল। যাতে সে ধারাটি অব্যাহত না থাকে সেজন্য তার পরিবারকে হত্যা করা হয়েছে।

তিনি বলেন, এ হত্যাকাণ্ডের মাধ্যমে হত্যাকারীরা চেয়েছিল আমাদের মুক্তিযুদ্ধের চেয়ে অর্জন এবং ভাষা আন্দোলনের বাঙালি জাতীয়তাবাদের চেতনা সেটি বিনষ্ট করে দিতে। কিন্তু তারা জানে না বঙ্গবন্ধু তথা মুজিব আদর্শের চেতনা সেটি হত্যা করা যায় না। কিছু মানুষ মুজিব দর্শনের যে চেতনা সেটি জীবিত রাখতে কাজ করবে। আজকের প্রোগ্রাম সেটি প্রমাণ করেছে যে ব্যক্তি মুজিব আমাদের মাঝে নেই কিন্তু তার যে দর্শন সেটি আমাদের মাঝে রয়ে গেছে। অসমাপ্ত আত্মজীবনী, কারাগারের রোজনামচা ও সিক্রেট ডকুমেন্টসের মাধ্যমে বর্তমান প্রজন্ম ইতিহাসের সত্য জানতে পারছে। এগুলো থেকে তরুণ প্রজন্ম নতুন ভাবে বঙ্গবন্ধুকে আবিষ্কার করতে এবং বিশ্বাস রাখতে সক্ষম হচ্ছে।

এমএইচ/জেএইচ/জেআইএম

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস নিয়ে লিখতে পারেন আপনিও - [email protected]