পাবিপ্রবিতে ভর্তি পরীক্ষায় প্রতি আসনে লড়বেন ২৮ জন

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি পাবনা
প্রকাশিত: ০৯:৫৮ পিএম, ১৯ অক্টোবর ২০১৯

পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (পাবিপ্রবি) ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে ভর্তি পরীক্ষায় প্রতি আসনের জন্য ২৮ জন শিক্ষার্থী লড়বেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের ছয়টি অনুষদের ৯২০টি আসনের বিপরীতে ২৫ হাজার ৭০৫ জন শিক্ষার্থী আবেদন করেছেন। আগামী ১৫ নভেম্বর এ ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

ভর্তি পরীক্ষায় দুর্নীতি ও অসদুপায় রোধে এবার এমসিকিউ (নৈর্ব্যক্তিক) পরীক্ষার পাশাপাশি লিখিত পরীক্ষা নেয়া হবে। মৌখিক পরীক্ষার সময় লিখিত পরীক্ষার লেখা দেখে পরীক্ষার্থীর হাতের লেখা যাচাই করা হবে।

শনিবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. এম রোস্তম আলী ভর্তি পরীক্ষাসহ অন্যান্য বিষয় নিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় এ তথ্য জানান।

উপাচার্য বলেন, ক্যাম্পাসের একাডেমিক ভবনসহ শহরের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। ভর্তি পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করার লক্ষ্যে সকল প্রস্তুতি গ্রহণ করা হবে। তথ্যকেন্দ্র স্থাপন করা হবে। অভিভাবকদের বসার ব্যবস্থা করা হবে। অসাধু পরীক্ষার্থীরা নানা পদ্ধতিতে জালিয়াতির আশ্রয় নিতে পারে। এজন্য ভর্তি পরীক্ষা দুর্নীতিমুক্ত ও জালিয়াতি মুক্তভাবে গ্রহণের লক্ষ্যে সাংবাদিকসহ সকল মহলের সর্বাত্মক সহযোগিতা দরকার।

তিনি আরও বলেন, এমসিকিউ এবং লিখিত উভয় পদ্ধতিতে পরীক্ষা নেয়া হবে। প্রকৃত মেধাবীদের মধ্য থেকে সেরা শিক্ষার্থীদের আমরা বেছে নেব। সব রকম দুর্নীতি নিয়ন্ত্রণ করে বিশ্ববিদ্যালয়ের সুনাম ও মর্যাদা উঁচু স্তরে নেয়া হবে। অচিরেই এই বিশ্ববিদ্যালয় আন্তর্জাতিক মান সম্পন্ন পর্যায়ে উন্নীত হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক ও ছাত্র রাজনীতি বন্ধ করার বিষয়ে উপাচার্য বলেন, বিষয়টি সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে আলোচনা করা হবে।

জনসংযোগ দফতরের উপ-পরিচালক ফারুক হোসেন চৌধুরীর সঞ্চালনায় মতবিনিময় সভায় উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. অনোয়ারুল ইসলাম, বঙ্গবন্ধু হলের প্রভোস্ট মো. সাইফুল ইসলাম, প্রক্টর ড. প্রীতম কুমার দাস, ছাত্র উপদেষ্টা মো. মাহমুদুল হাসান প্রমুখ বক্তব্য দেন।

একে জামান/আরএআর/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]